আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ফের সুর নরম পাকিস্তানের। কাশ্মীর–সহ সব বিষয় নিয়ে আলোচনায় বসতে চেয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে আবারও প্রস্তাব দিলেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। 
ইমরান জানিয়েছেন, ‘‌বিবাদমান কাশ্মীর ইস্যু–সহ ভারতের সঙ্গে সব সমস্যা আলোচনার মাধ্যমে মিটিয়ে নিতে আগ্রহী পাকিস্তান। দক্ষিণ এশিয়ার আঞ্চলিক স্থিতিশীলতার জন্য, দুই দেশের সামগ্রিক উন্নতি এবং দারিদ্র দূরীকরণে ভারত ও পাকিস্তানকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে। তাই সবার আগে মুখোমুখি বৈঠকে বসাটা জরুরি।’‌ এর আগে লোকসভা নির্বাচনে জেতার জন্য দু’বার মোদিকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ইমরান। তবে কেবল ইমরানই নন, ভারতের নবনিযুক্ত বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্করকে শুভেচ্ছা জানিয়ে বৃহস্পতিবার চিঠি দিয়েছিলেন পাক বিদেশমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশিও। ওই চিঠিতে তিনিও ভারতের সঙ্গে আলোচনায় বসার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। চিঠিতে লেখেন, ইসলামাবাদ সব গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুতে নয়াদিল্লির সঙ্গে কথা বলতে চায়। কুরেশির এই চিঠির কথা প্রকাশ্যে আসতেই দুই প্রতিবেশী দেশের সম্পর্ক, যা ১৪ ফেব্রুয়ারি পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলার পর থেকে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছিল, তা কিছুটা নরম হতে পারে বলে মনে করছে কূটনৈতিক মহল। 
তবে এক্ষেত্রে আশঙ্কাও প্রকাশ করেছে ওয়াকিবহাল মহলের একাংশ৷ তাঁদের মতে, মুখে একসঙ্গে কাজের কথা বললেও, পাক প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি বাস্তবে কতটা কার্যকর হবে তা নিয়ে আশঙ্কা রয়েছে৷ কারণ, ‘নতুন পাকিস্তান’ গড়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে ২০১৮–তে ক্ষমতায় আসেন ইমরান খান৷ ভারত প্রসঙ্গে বলেন, ‘নয়াদিল্লি এক পা এগোলে, আমি দু’পা এগোব৷’ কিন্তু বাস্তবে এর উলটোই হয়৷ মুখে সন্ত্রাসবাদ নির্মূলের কথা বললেও, আদতে সযত্নে জঙ্গিদেরই লালন পালন করে চলেছে পাকিস্তান৷ এমনকী পুলওয়ামার মতো ভয়াবহ জঙ্গি হানায় জইশ প্রধান মাসুদ আজহারের যোগ মানতে চায়নি পাক সরকার৷ 

জনপ্রিয়

Back To Top