আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ টাকা নেই। তাই হোটেলে থাকবেন না। থাকবেন দূতের বাড়িতে। এমনটাই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। আগামী ২১ জুলাই আমেরিকা সফরে যাচ্ছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। আগে তিনি সেখানে বহুবার থেকেছেন বিলাসবহুল হোটেলে। যার খরচ বহন করেছিল পাকিস্তানের সরকার। কিন্তু এখন প্রবল আর্থিক সংকটে পাকিস্তান। তাই ইমরান স্থির করেছেন তিন দিনের আমেরিকা সফরে আর হোটেলে থাকবেন না। সেখানে পাকিস্তানের দূতের যে সরকারি বাসভবনে থাকবেন।
এদিকে পাকিস্তানের দৈনিক সংবাদপত্র ‘দ্য ডন’ জানিয়েছে, ইমরান যদি আমেরিকায় গিয়ে পাকিস্তানের দূত আসাদ মজিদ খানের সরকারি বাসভবনে থাকেন, তাতে খরচ অনেক কমবে সন্দেহ নেই। কিন্তু ওয়াশিংটনের নগর প্রশাসন বা আমেরিকার গোয়েন্দারা এই বন্দোবস্তকে ভাল চোখে দেখবে না।
অন্যদিকে আমেরিকায় কোনও বিদেশি রাষ্ট্রপ্রধান এলে তাঁর নিরাপত্তার দায়িত্ব নেয় সেদেশের সিক্রেট সার্ভিস। নগর প্রশাসন লক্ষ্য রাখে, বিদেশি রাষ্ট্রপ্রধানের যাতায়াতের ফলে শহরের স্বাভাবিক যান চলাচল ব্যাহত হচ্ছে কিনা। 
পাকিস্তানের দূতের সরকারি বাসভবন ওয়াশিংটনের একেবারে কেন্দ্রস্থলে। সেখানে আরও এক ডজন দূতাবাস আছে। ভারত, তুরস্ক এবং জাপানের দূতেরাও সেখানেই থাকেন। দূতের সরকারি বাসভবনে অত বেশি লোক যেতে পারবেন না। অত জায়গাই নেই সেই বাড়িতে। ফলে ইমরানকে বার বার দূতাবাসে আসতে হবে। ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top