‌আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ এবার বোঝা গেল ট্রাম্পের বিতর্কিত টুইটের রহস্য। তিনি নাকি বিছানায় শুয়ে শুয়ে টুইট করেন। অগোছালো সময়ের টুইট যে আলটপকা হবে তাতে আর আশ্চর্য কী!‌ বিশেষত ব্যক্তি যদি হন ট্রাম্প। তবে মাঝে মাঝে অন্য কাউকে দিয়েও নিজের মতামত জানিয়ে টুইট করে থাকেন তিনি। সরকারের নীতি, বিরোধীদের আক্রমণ, উত্তর কোরিয়ার মতো দেশকে বাগে আনতে তাঁর পরিকল্পনা জানিয়ে টুইট করে থাকেন ডন। তা নিয়ে বিতর্কও হয়। তবে সেই বিতর্ক যে তিনি উপভোগ করেন, তা জানিয়েছেন অকপটে। এক সাক্ষাৎকারে ট্রাম্প বলেছেন, ভুয়ো খবরে যখন সোশ্যাল মিডিয়া ছেয়ে গিয়েছে তখন ভোটারদের সঙ্গে যোগাযোগের মাধ্যম হিসেবে তিনি টুইট বেছে নিয়েছেন। তাঁর কথায়, ‘‌আমি যদি এইভাবে যোগাযোগ না করি, তবে আত্মপক্ষ সমর্থন করতে পারব না। আমি এত ভুয়ো খবর পাই। অনেকগুলোই মিথ্যে। বেশিরভাগই বানানো।’‌ তাঁর টুইটের অপেক্ষায় থাকে গোটা বিশ্ব, এটা তাঁর পক্ষে গর্বের বলে জানিয়েছেন তিনি। মার্কিন প্রেসিডেন্ট তিনি। সেই সুবাদে দুনিয়ার সবচেয়ে শক্তিধর মানুষও। এহেন ট্রাম্প টুইটের জন্য কোন সময়কে বেছে নেন?‌ তাঁর কথায়, ‘‌কখনও বিছানায় শুয়ে শুয়ে, কখনও প্রাতরাশ বা মধ্যাহ্নভোজে.‌.‌.‌ ‌যথন তখন। সাধারণত খুব সকালে বা সন্ধেবেলা.‌.‌. যখন সময় পাই আরকি!‌ সারাদিন কিন্তু আমি ব্যস্ত থাকি।’‌ 

জনপ্রিয়

Back To Top