আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ যতই পূর্ব উপকূলের দিকে এগোচ্ছে ততই ভয়ানক আকার নিচ্ছে হারিকেন ফ্লোরেন্স। আমেরিকার ন্যাশনাল হারিকেন সেন্টার বা এনএইচসি–র পূর্বাভাস, স্থানীয় সময় শুক্রবার বিকেলে নর্থ ক্যারোলাইনা উপকূলে আছড়ে পড়তে পারে ক্যাটাগরি–৩ হারিকেন ফ্লোরেন্স। বুধবার হারিকেনের গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ১৮৫ কিলোমিটার।
এনএইচসি–র পূর্বাভাস, ফ্লোরেন্সের প্রকোপে দক্ষিণ জর্জিয়া থেকে দক্ষিণ ভার্জিনিয়া তছনছ হতে পারে। প্রায় ১৩ ফুট উঁচু হতে পারে সমুদ্রের ঢেউ। ক্যারোলাইনা, জর্জিয়া এবং ভার্জিনিয়ায় প্রায় ৭৬ সেন্টিমিটার বৃষ্টি হতে পারে। এর ফলে ওই তিন স্টেটের নদীগুলি উপচে প্লাবিত হয়ে যেতে পারে নিচু এলাকাগুলি। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প মানুষকে আশ্বস্ত করে বলেছেন, ফ্লোরেন্সের মোকাবিলায় প্রস্তুত থাকতে বলা হয়েছে প্রশাসন, বিপর্যয় মোকাবিলা দপ্তর এবং সেনাবাহিনীকে। জরুরি ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।
উত্তর এবং দক্ষিণ ক্যারোলাইনা এবং ভার্জিনিয়ায় সবাইকে নিরাপদ স্থানে সরানোর নির্দেশ দিয়েছেন ট্রাম্প। এপর্যন্ত ২৭০০ জাতীয় নিরাপত্তারক্ষীকে মোতায়েন করা হয়েছে। প্রস্তুত রাখা হয়েছে আরও সেনা এবং জাতীয় নিরাপত্তারক্ষীকে। ক্যারোলাইনা এবং ভার্জিনিয়ার ১৬টি পরমাণু চুল্লিকে আলাদাভাবে নিরাপত্তার মোড়কে মুড়ে ফেলা হয়েছে। ইতিমধ্যেই ক্যারোলাইনা এবং ভার্জিনিয়া উপকূল থেকে ১০ লক্ষ মানুষকে নিরাপদ স্থানে সরানো হয়েছে। যেখানে হারিকেনের আছড়ে পড়ার কথা, সেখানে কমপক্ষে এক কোটি মানুষ থাকেন। ফলে ওই এলাকাগুলিতে কড়া সতর্কতা নিয়েছে প্রশাসন।      ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top