আজকাল ওয়েবডেস্ক: ব্রিটেন ছেড়ে যুবজরাজ চার্লসের ছোট ছেলে, রাজপুত্র হ্যারি এবং পুত্রবধূ মেঘান বর্তমানে কানাডা নিবাসী। এখন তাঁরা যদি আমেরিকায় চলে আসেন, তাহলে তাঁদের নিরাপত্তার কোনও দায়দায়িত্ব আমেরিকা বহন করবে না। তাঁদের নিজেদেরই নিজেদের সুরক্ষার ব্যবস্থা করতে হবে এবং সেজন্য খরচ করতে হবে। একথা স্থানীয সময় রবিবার পরিষ্কার করে টুইটারে জানিয়ে দেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। খবর মিলেছে করোনাভাইরাসের জন্য কানাডা–আমেরিকা সীমান্ত সাময়িকভাবে বন্ধ হয়ে যাওয়ার আগেই হ্যারি–মেঘান ব্যক্তিগত বিমানে লস এঞ্জেলেসের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় এরপরই প্রশ্ন ঘুরপাক খেতে শুরু করে যে তাহলে এখন রাজ দম্পতির নিরাপত্তার দায়িত্ব এবং খরচ কি আমেরিকা বহন করবে। তারই জবাবে ট্রাম্প টুটি পোস্টে লেখেন, ‘‌আমি রানি এবং ইউনাইডেড কিংডমের বড় অনুরাগী। খবর মিলেছিল, হ্যারি এবং মেঘান যাঁরা কিংডম ছেড়ে দিয়েছেন তাঁরা স্থায়ীভাবে কানাডায় বসবাস করবেন। এবার তাঁরা আমেরিকার জন্য কানাডা ছেড়েছেন। যদিও আমেরিকা তাঁদের সুরক্ষার জন্য কোনও খরচ করবে না। তাঁদের নিজেদেই করতে হবে।’‌ পরে হ্যারি–মেঘানের মুখপাত্রের তরফে বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়, ওয়াশিংটনের কাছ থেকে তাঁরা কোনও সাহায্য নেবেন না। তাঁদের ব্যক্তিগত তহবিল থেকেই তাঁরা খরচ চালাবেন।    

জনপ্রিয়

Back To Top