আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ পাঁচ বছরের জেল হল জঙ্গি হাফিজ সইদকে। সন্ত্রাসে টাকা টাকা জোগান দেওয়ার ২টি মামলায় দোষী সাব্যস্ত জামাত–উদ–দাওয়া প্রধান হাফিজ সইদ। এই মামলায় বুধবার তাকে পাঁচ বছর ৬ মাস কারাদণ্ডের আদেশ দিলেন লাহোরের সন্ত্রাস দমন আদালতের বিচারপতি আরশাদ হুসেন ভাট্টা। শুধু তাই নয়, হাফিজকে ১৫,০০০ টাকা জারিমানাও করেছে আদালত। পাকিস্তানের সন্ত্রাস দমন আইনের ১১ এফ ধারায় তাকে সাজা শোনানো হয়েছে। 
এই হাফিজ সইদই ২০০৮ সালে মুম্বইয়ে নৃশংস জঙ্গি হামলার মাস্টারমাইণ্ড। তাতে মৃত্যু হয়েছিল ১৬৬ জনের।  এরপর মুম্বই হামলার প্রধান কারিগর ও  লস্কর-ই-তৈবার প্রতিষ্ঠাতা হাফিজ সইদেকে আন্তর্জাতিক জঙ্গির তকমা দিয়েছে রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ। ভারত এনিয়ে পাকিস্তানকে বহু তথ্যপ্রমাণ দিলেও এতদিন কোনও ব্যবস্থা নেয়নি পাক সরকার। এর মধ্যে একবার সইদকে গৃহবন্দি করেছিল পাক প্রশাসন। তবে তা ছিল পুরোপুরি লোকদেখানো। বলে রাখা ভাল, হাফিজ সইদের বিরুদ্ধে মোট ২৩টি মামলা রয়েছে। ভারতের আপত্তি সত্ত্বেও  পাকিস্তানের মাটিতে বহাল তবিয়তেই নিজের কাজ চালিয়ে যাচ্ছিল সইদ। পাশাপাশি সন্ত্রাসে টাকার জোগান দেওয়ার জন্য একাধিক সামাজিক সেবা প্রতিষ্ঠান খুলে  চাঁদাও তুলছিল এই জঙ্গি নেতা।
গতবছর ওই দুই মামলায় জঙ্গিদমন আদালেত চার্জশিট দেয় পাক পুলিশ। শুনানি শুরু হয় ৩০ নভেম্বর। ডিসেম্বর মাসের ১৬ তারিখের পর থেকে প্রত্যেকদিন শুনানি চলে। শেষপর্যন্ত ১২ ফেব্রুয়ারি মামলার রায় দিল আদালত।

জনপ্রিয়

Back To Top