আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ তার গণহত্যার ছক ভেস্তে গিয়েছে বলে সে অত্যন্ত দুঃখিত। সোশ্যাল সাইট অ্যামাজনের গেমিং সাইট টুইচে একথাই বলেছে জার্মানির পূর্বাংশের শহর হ্যালের সিনাগগে হামলাকারী আততায়ীর। স্থানীয় সময় বুধবার ছিল ইহুদিদের সব চেয়ে পবিত্র দিন ইওম কিপ্পুর। সেকারণে হ্যালের সিনাগগে প্রার্থনার আয়োজন করেছিলেন ইহুদিরা। সেখানেই ঢুকে গণহত্যা চালানোর ছক ছিল বন্দুকবাজের। কিন্তু সিনাগগের দরজা বন্ধ থাকায় ভিতরে ঢুকতে পারেনি ২৭ বছরের আততায়ী। তাই সিনাগগের সামনের রাস্তায় এক মহিলা এবং পাশে কাবাবের দোকানে দাঁড়িয়ে থাকা এক ব্যক্তিকে গুলি করে হত্যা করে নিজেকে অ্যানন নামে পরিচয় দেওয়া আততায়ী। পুরো হত্যাকান্ডটা সে নিজের মাথায় লাগানো ক্যামেরায় তুলে অ্যামাজনের টুইচ সাইটে লাইভস্ট্রিম বা সরাসরি সম্প্রচার করেছিল। ৩৫ মিনিটের ওই ফুটেজেই হত্যালীলার ছক ভেস্তে যাওয়ার কারণ হিসেবে নিজের বাড়িতে তৈরি বন্দুককে দায়ী করেছে অ্যানন। গুলি চালানোর সময় তাকে বলতে শোনা যায় নারীবাদ, শরণার্থী সমস্যা বা জন্মহারে ঘাটতি সহ পৃথিবীর সব সমস্যার মূলে ইহুদিরাই। কিন্তু দুজনকে হত্যার পরই বন্দুক কাজ না করায় এবং পুলিস ঘটনাস্থলে পৌঁছে যাওয়ায় পালায় সে।
জার্মান প্রশাসন সূত্রে খবর, ইতিমধ্যে একজনকে হেপাজতে নিয়ে জেরা করছে পুলিস। খতিয়ে দেখা হচ্ছে বুধবারের ঘটনার ভিডিও ফুটেজ। তবে সেই আততায়ী কিনা সেব্যাপারে এখনও নিশ্চিতভাবে কিছু জানায়নি পুলিস। পুলিস আরও বলেছে, আততায়ী বেনডর্ফ শহরের বাসিন্দা এবং নিও–নাৎসি সমর্থক। পুলিসের খাতাতেও তার নাম নেই। এদিকে বৃহস্পতিবার অ্যামাজনের তরফে মৃতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা বিবৃতিতে বলা হয়েছে তাদের কোম্পানি এধরনের কোনওরকম বিদ্বেষমূলক কাজকর্মকে সমর্থন করে না। ওই ভিডিও ফুটেজ, ভিডিও সংক্রান্ত কোনওরকম পোস্ট বা টুইট সরিয়ে ফেলা হয়েছে। ওই সংক্রান্ত আর কোনও পোস্ট করা যাবে না বলেও বিবৃতিতে সাফ জানিয়েছে অ্যামাজন। জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মের্কেলের হয়ে টুইটারে মৃতদের পরিবারের প্রতি শোকপ্রকাশ করে সরকারি মুখপাত্র স্টিফেন সিবার্ট টুইটারে লিখেছেন পবিত্র ইওম কিপ্পুরের দিনে এধরনের ঘটনায় সারা জার্মানি ইহুদিদের পাশে আছে। পুলিস এই ঘটনার তদন্ত করছে বলেও জানিয়েছেন সিবার্ট। জার্মান বিদেশমন্ত্রী হেইকো মাস বলেছেন, তাঁদের দেশ কোনওরকম ইহুদি বিদ্বেষমূলক নীতিকে কখনও প্রশয় দেবে না।
ছবি:‌ এএনআই‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top