আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ রাস্তায় আর একটি গাড়িরও তিলধারণের জায়গা নেই। ১৫ মিনিটের রাস্তা এক ঘণ্টায় এসে ঠেকেছে। ইশ!‌ গুপি-‌বাঘার মতো যদি জাদু জানতাম বা নিজের একটা প্লেন থাকত!‌ 
ইন্দোনেশিয়ার বাসিন্দা চল্লিশোর্ধ্ব জুজুন জুনেয়দি ১৮ মাসের মধ্যে নিজের বাড়ির উঠোনে এই স্বপ্ন সত্যি করে দেখালেন। সঙ্গী ছিলেন জুনেয়দির ছোট ছেলে ও এক প্রতিবেশী। 
হঠাৎ তিনি কেন এই মতলব করলেন?‌ জাকার্তার দক্ষিণে ১১০ কিমি দূরে বাড়ি তাঁর। শহরে রাস্তার চাইতে গাড়ি বেশি। গাড়ি নিয়ে বেরোলে গন্তব্যে পৌঁছানো তো অসম্ভবই, শেষ হয়ে যেতে পারে পেট্রোলও। প্রতিদিন যানজটে বিরক্ত মানুষ। সেই বিরক্তিই জন্ম দিল জুনেয়দির নিজস্ব ২৬ ফুট লম্বা হেলিকপ্টারের। ভারতীয় টাকায় দেড় লাখের বেশি খরচ হয়েছে তাঁর। বিভিন্ন বাতিল জিনিস দিয়ে আস্ত একটা হেলিকপ্টার বানালেন তিনি। 
শুধুমাত্র জুনেয়দি না, এই দুনিয়ায় আরও কত প্রতিভা ছড়িয়ে আছে, কে জানে!‌ পাকিস্তানের একজন পপকর্ন বিক্রেতা মহম্মদ ফিয়াজ প্লেন বানানোর কাজে হাত দিয়েছিলেন। স্বপ্ন ছিল পাইলট হবেন। সেই তাগিদেই পথচলা শুরু। কিন্তু দেশের আইনশৃঙ্খলা বাধা হয়ে দাঁড়ায় স্বপ্নের এই উড়ানের পথে। তাঁর স্বপ্ন যেন সুদূর ইন্দোনেশিয়ার জুনেয়দি আজ পূরণ করলেন।       ‌‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top