আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ইওরোপের বিভিন্ন দেশ আপাতত করোনার ধাক্কা কাটিয়ে উঠেছে। গ্রিস, স্পেন, ফ্রান্সের মতো দেশে আর বাধ্যতামূলক নয় মাস্ক। বিদেশি পর্যটকরাও ইওরোপের একাধিক দেশে ঘুরতে যাচ্ছেন। আর এখানেই দুশ্চিন্তার কালো মেঘ দেখছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। 
হু’‌র ইওরোপ শাখার প্রধান হান্স ক্লুগ সতর্ক করেছেন, ‘‌বিপদ এখনও কাটেনি। বাড়ছে সামাজিক মেলামেশা। আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই শুরু হচ্ছে নানা উৎসব ও ক্রীড়া প্রতিযোগিতা। হু এবিষয়ে সকলকে সতর্ক করে দিতে চাইছে।’ এই মুহূর্তে ফ্রান্সে শুরু হয়ে গিয়েছে ফরাসি ওপেন। শনিবার থেকে ইওরোপিয়ান ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপ শুরু হবে।
ইওরোপের সব দেশেই সংক্রমণ কমতে থাকায় করোনা বিধি শিথিল করা হয়েছে। জার্মানিতে মাস্ক পরা আর বাধ্যতামূলক নয়। ব্রিটেনেও তাই। ফ্রান্সে দেখা যাচ্ছে পুরনো দিনের মতোই সবাই একসঙ্গে বাইরে বেরিয়ে খাওয়া দাওয়া করছেন। নেই রাতের কারফিউও। বিদেশি পর্যটকদের গ্রিস ও স্পেনে প্রবেশাধিকার দেওয়া হয়েছে। ইওরোপের অধিকাংশ দেশেই ৫০ শতাংশ টিকাকরণ হয়ে গিয়েছে। সেই কারণেই এই শিথিলতা। ক্লুগ জানাচ্ছেন, ‘গত ছ’মাসে ৪০ কোটি ডোজ প্রয়োগ করা হয়েছে ওই অঞ্চলে। কিন্তু এবারের গ্রীষ্মে আরও দ্রুতগতিতে টিকাকরণ হওয়া দরকার।’ পাশাপাশি তিনি সতর্ক করে বলেছেন, সংক্রমণ কমলেও যেভাবে জমায়েত বাড়ছে, কিংবা মানুষ এক শহর থেকে অন্য শহরে চলে যাচ্ছেন, তা থেকে আবার নতুন করে বিপদ আসতেই পারে। আবার একই দৃশ্য দেখা যাচ্ছে আমেরিকাতেও। সেখানেও মাস্ক পরায় শিথিলতা আরোপ করা হয়েছে। যা নিয়ে সতর্ক করেছেন বিশেষজ্ঞরা। 
 

জনপ্রিয়

Back To Top