আজকাল ওয়েবডেস্ক: দুবাইয়ের বাদশা শেখ মহম্মদ বিন রশিদ আল মখতুমের ষষ্ঠপত্নী, রাজবধূ হায়ার বিবাহবহির্ভূত সম্পর্ক ছিল তাঁরই ব্রিটিশ দেহরক্ষীর সঙ্গে। কিন্তু তাঁদের দুবছরের সেই সম্পর্কের খবর যাতে রাষ্ট্র না হয় সেজন্য দেহরক্ষী রাসেল ফ্লাওয়ার্সকে তাঁর মুখ বন্ধ রাখতে ভারতীয় মুদ্রায় ১২ কোটি টাকা দিয়েছিলেন হায়া। এছাড়া প্রচুর দামি উপহারও দিয়েছিলেন তিনি। তার মধ্যে ছিল ১২,০০০ পাউন্ডের একটা ঘড়ি এবং একটি ভিন্টেজ শটগান।
সূত্রের খবর, ৩৭ বছরের রাসেলকে নিজের রূপে আকৃষ্ট করতে চেষ্টার ত্রুটি রাখেননি হায়া। দুজনের সম্পর্কের খবর সামনে আসে যখন ৭০ বছরের মখতুমের সঙ্গে হায়ার আইনি লড়াই চলছিল দুবাই হাইকোর্টে তাঁদের দুই সন্তানের দায়িত্ব নিয়ে। মখতুমের আইনজীবী বলেন, হায়া বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছিলেন তাঁরই দেহরক্ষীর সঙ্গে। তবে ওই মামলায় হায়া জিতে যান। বর্তমানে কেনসিংটনে সন্তানদের সঙ্গে থাকেন তিনি। রাসেলের স্ত্রীর বান্ধবীর অভিযোগ, রাসেল আসলে হায়ার থেকে পাওয়া দামি উপহার দেখেই প্রলুব্ধ হয়ে গিয়েছিলেন। কিন্তু রাজবধূর সঙ্গে স্বামীর বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কের কথা জানতে পেরে ভেঙে পড়েন রাসেলের স্ত্রী। তিনি বিবাহবিচ্ছেদের সিদ্ধান্তও নেন।        

জনপ্রিয়

Back To Top