আজকাল ওয়েবডেস্ক: পোষ্যদের নিয়ে একটি অনলাইন বিজ্ঞাপন দেখে শখ হয়েছিল সাভানা ক্যাট পোষার। আফ্রিকার বাসিন্দা, সার্ভাল প্রজাতির বন্য এবং গৃহপালিত বিড়ালের সংমিশ্রণ এই সাভানা ক্যাট। এদের পা সাধারণত লম্বা হয়, কান বড়, শরীর ছিপছিপে, গায়ে কমলা–খয়ের মেশানো লোমের উপর কালো বিন্দু, অনেকটা চিতার মতো। সেই মতো ৬০০০ ইউরো খরচ করে অনলাইনে এই বিশেষ প্রজাতির বিড়ালছানা কেনার জন্য অর্ডারও দিয়েছিলেন ফ্রান্সের উত্তরপশ্চিমাংশের বন্দর অঞ্চল নর্ম্যান্ডির লা হার্ভে শহরের বাসিন্দা এক ফরাসি দম্পতি। কিন্তু কেনার এক সপ্তাহ পর তাঁরা বুঝতে পারেন, সেটি আসলে তিন মাস বয়স্ক একটি সুমাত্রার বাঘের ছানা।
এরপরই ওই দম্পতি পুলিশে অভিযোগ দায়ের করে ওই কোম্পানির বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ২০১৮ সালে ঘটেছিল। তারপর দুবছর ধরে তদন্ত চালানোর পর অভিযোগকারী দম্পতি সহ মোট ৯জনকে পুলিশ গ্রেপ্তার করলে পর পুরো ঘটনাটি সামনে আসে। ওই দম্পতিকে গ্রেপ্তারির কারণ হিসেবে পুলিশ জানায়, সংরক্ষিত প্রজাতির পশু পাচারের অভিযোগেই এই গ্রেপ্তারি। পরে অবশ্য ওই দম্পতিকে ছেড়ে দেওয়া হয়। বাকিদের পশু পাচার এবং সংগঠিত অপরাধে অভিযুক্ত করা হয়েছে। বাঘের ছানাটিকে ফ্রান্সের বায়োডাইভার্সিটি অফিসে পাঠিয়ে দিয়েছিল পুলিশ। ছানাটি সুস্থই আছে। পরে ছানাটিকে সংরক্ষিত জায়গায় স্থানান্তরিত করা হয়। 

জনপ্রিয়

Back To Top