আজকাল ওয়েবডেস্ক: অনেকেই মনে করছেন গরমে হয়তো ভাইরাসটির দাপট বন্ধ হয়ে যেতে পারে। হাঁফ ছেড়ে বাঁচতে পারে উত্তর গোলার্ধ। গরমে ভাইরাসটির সংক্রমণ পুরোপুরি বন্ধ না হলেও তা অনেকটাই কমে যেতে পারে বলে মনে করেছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটস বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা। তাঁদের গবেষণা সংক্রান্ত একটি রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে মার্কিন দৈনিক নিউইয়র্ক টাইমসে।
সেই গবেষনায় দেখা যাচ্ছে, গড় তাপমাত্রা যেখানে কম (৩ ডিগ্রি থেকে ১৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস) সেখানে সংক্রমণের ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা বেশি। পারদ যেখানে বেশি সেখানে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা কম। দক্ষিণ গোলার্ধ এবং নিরক্ষীয় অঞ্চলের দেশগুলিতে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা অনেকটাই কম। উল্লেখ্য, দক্ষিণ গোলার্ধে এখনও গ্রীষ্মকাল চলছে। কিছুদিনের মধ্যেই সেখানে শীত পড়বে। বিজ্ঞানীদের দাবি, গড় পারদ যেখানে ১৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসের বেশি, সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা গোটা বিশ্বের মধ্যে মাত্র ৬ শতাংশ।
গবেষণার সঙ্গে যুক্ত বিজ্ঞানী কাসিম বুখারি বলেন, ‘‌আবহাওয়া যেখানে ঠান্ডা, সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা অনেকটাই বেশি। ইউরোপের দেশগুলো দেখলেই বোঝা যাবে।’‌ তাঁদের দাবি, উষ্ণ আবহাওয়ার অ্যারিজোনা, ফ্লোরিডা আর টেক্সাসে সংক্রমণ ছড়ানোর গতি ওয়াশিংটন, নিউইয়র্ক, কলোরাডোর মতো শীতল অঞ্চলের থেকে অনেকটাই কম।
শুধু ম্যাসাচুসেটস বিশ্ববিদ্যালয় নয়, আরও অন্তত দু’টো গবেষণা একই সিদ্ধান্তে এসেছে যে, গরমের আবহাওয়ায় করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ছড়ানোর সম্ভাবনা কম।
তবে সতর্ক করে দিয়েছেন ডঃ বুখারি। তাঁর দাবি, ভাইরাসের সংক্রমণ কমিয়ে দেওয়ার সব থেকে বড় অস্ত্র হল লকডাউন। তিনি বলেন, ‘‌গরম আবহাওয়ায় এই ভাইরাসের সংক্রমণের গতি কমতে পারে, কিন্তু তা বলে সে সংক্রমণ ছড়াবে না, সেটা কিন্তু আমরা বলছি না।’‌ বর্তমানে ভাইরাস নিজের থেকে তিনদিন পর্যন্ত বাঁচতে পারে। তিনি জানান, গরমে এই ভাইরাস হয়তো অনেক দিন বাঁচবে না। কিন্তু কয়েক ঘণ্টা বাঁচবে। ফলে সংক্রমণ ছড়াবেই।
 

জনপ্রিয়

Back To Top