আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ নার্সারির পড়ুয়াদের খাবারে বিষ মেশানোর জেরে চীনের এক শিক্ষিকার প্রাণদণ্ডের সাজা হল। ঘটনাটি ঘটেছে জিয়াজুও প্রদেশের একটি কিন্ডার গার্ডেন স্কুলে। দোষী সাব্যস্ত ওই শিক্ষিকার নাম ওয়াং ইউন।
আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, গত বছরের মার্চ মাসে জিয়াজুও শহরের একটি কিন্ডার গার্ডেন স্কুলে ওয়াং উইন নামে ওই শিক্ষিকার সঙ্গে অন্য এক শিক্ষিকার পড়ানো সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে ঝগড়া হয়। ওয়াং পড়ুয়াদের ঠিকমতো পড়াতে পারছে না বলে কটাক্ষ করেন ওই শিক্ষিকা। এর জেরে গন্ডগোলের পরের দিন, ২৭ মার্চ ওই শিক্ষিকার ২৫ জন পড়ুয়ার সকালের জলখাবারে সোডিয়াম নাইট্রেট নামক একটি বিষাক্ত পদার্থ মিশিয়ে দেয় ওয়াং। এর জেরে কিছুক্ষণের মধ্যেই অসুস্থ হয়ে পড়ে ওই শিশুরা। বমি করতে থাকে।
কিছুক্ষণ বাদে তাদের শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে এক শিশুর মৃত্যু হয়। স্কুল কর্তৃপক্ষ ও পড়ুয়াদের অভিভাবকদের অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযুক্ত ওয়াং উইনকে গ্রেপ্তার করে মামলা শুরু করে প্রশাসন। সম্প্রতি সেই মামলার শুনানিতে ওয়াংকে দোষী সাব্যস্ত করে জিয়াজুও প্রদেশের একটি আদালত। আর সোমবার তাকে প্রাণদণ্ডের সাজা দেওয়া হয়। খুব তাড়াতাড়ি বিষ ইঞ্জেকশনের মাধ্যমে বা ফায়ারিং স্কোয়্যাডের সামনে ওয়াং উইনকে দাঁড় করানো হবে বলে জানা গিয়েছে।
এর আগেও অনলাইনের মাধ্যমে সোডিয়াম নাইট্রেট কিনে নিজের স্বামীর খাবারে মিশিয়ে ছিল ওয়াং। সেই খাবার খেয়ে তার স্বামী অসুস্থ হয়ে পড়লেও প্রাণে বেঁচে যান। তবে সেসময় এই নিয়ে আদালতে কোনও মামলা দায়ের হয়নি। কিন্তু এবার আর শেষ রক্ষা হল না। একরত্তি শিশুদের খাবারে বিষ মেশানোর জেরে প্রাণদণ্ডের সাজা দেওয়া হল তাকে।

জনপ্রিয়

Back To Top