আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ চীনে বড় বাজার পেতে চলেছে ভারতের ওষুধপ্রস্তুতকারী সংস্থাগুলি। চীনের বিদেশমন্ত্রকের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ভারতীয় ওষুধের ওপর আমদানি শুল্ক কমানো হচ্ছে। ফলে ভারতের ওষুধপ্রস্তুতকারী সংস্থাগুলি চীনের বিপুল মাপের বাজার অনেকটাই দখল করতে পারবে। আসলে মানুষজনই শুধু সস্তা খোঁজে না। বিপাকে পড়লে সস্তায় পরিষেবা ও জিনিস খোঁজে অন্যান্য দেশও। এমনই ঘটনা ঘটেছে বলেই বিরোধ ভুলে চীন এখন ভারতের দ্বারস্থ হয়েছে বলে মনে করছেন আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞরা। 
বিশেষজ্ঞদের দাবি, চীনে প্রতি বছর ৪৩ লক্ষ মানুষ ক্যান্সারে আক্রান্ত হন। ক্যান্সার চিকিৎসার ওষুধ অন্যান্য দেশ থেকে আমদানি করা ব্যয়বহুল বলে দাবি বেজিংয়ের। তুলনায় ভারতে দুরারোগ্য ওষুধের দাম অনেকটাই সস্তা। চীনের বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র হুয়া চুনিং জানিয়েছেন, ভারত এবং চীনের দ্বিপাক্ষিক চুক্তি হয়েছে। গত মে মাসে ক্যান্সারের ওষুধের ওপর আমদানি শুল্ক তুলে নেয় চীন। দুরারোগ্য চিকিৎসা পরিস্থিতি চীনে এতটাই ব্যয়বহুল যে সম্প্রতি ‘ডাইং টু সার্ভাইভ’ নামে একটি সিনেমা তৈরি হয়েছে সে দেশে। সেই সিনেমায় লিউকোমিয়ায় আক্রান্ত এক রোগীর জীবনের লড়াই দেখানো হয়েছে। যেখানে ব্যয়বহুল ওষুধ সস্তায় পেতে আমদানি শুল্ক তুলে দিচ্ছে চীন সরকার। আর এই সিনেমাই যে জিনপিং সরকারকে অনুপ্রাণিত করেছে বলে তাঁর দাবি। তিনি বলেন, ‘‌ডাইং টু সার্ভাইভ সিনেমায় দেশের স্বার্থে ক্যান্সার ওষুধে শূন্য কর প্রয়োগ দেখানো হয়েছে। দেশে এই সিনেমা অত্যন্ত জনপ্রিয়তা পেয়েছে’‌।

জনপ্রিয়

Back To Top