আজকাল ওয়েবডেস্ক: তাদের দেশের অফিসারদের উপর লাগু করা আমেরিকার নিষেধাজ্ঞা যে তারা মানবে না তা শুক্রবার স্পষ্ট করে দিয়েছে চীন। একইসঙ্গে মার্কিনী প্রতিষ্ঠান এবং ব্যক্তিদের উপর পারস্পরিকভাবে একইরকম পদক্ষেপ জারির হুঁশিয়ারিও দিয়েছে বেজিং। সাংবাদিক সম্মেলনে এদিন চীনের বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান বলেছেন, ‘‌চীনের অফিসারদের উপর জারি করা মার্কিনী নিষেধাজ্ঞা আমরা কড়াভাবে খারিজ করছি। এই ভুল পদক্ষেপটা চীনের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে নাক গলানো এবং চীন–আমেরিকা সম্পর্কের ক্ষেত্রেও ক্ষতিকারক। শিনজিয়াং–এ মার্কিন প্রতিষ্ঠান বা ব্যক্তিদের উপর আমরা পারস্পরিকভাবে একই পদক্ষেপ করতে পারি।’‌
শিনজিয়াং প্রদেশে উইঘুর মুসলিমদের উপর মানবাধিকার লঙ্ঘনের ফলে বৃহস্পতিবার আমেরিকা চীনা কমিউনিস্ট পার্টি বা সিসিপি–র তিনজন শীর্ষ অফিসারদের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে এবং ভিসায় কড়াকড়ি করে দেয়। ওই তিন অফিসার হলেন, এক্সইউএআর দলের সচিব চেন কুয়াংগুয়ো, শিনজিয়াং রাজনৈতিক এবং আইনি কমিটির সচিব ঝু হাইলুন এবং শিনজিয়াং পাবলিক সিকিওরিটি ব্যুরোর সচিব ওয়াং মিংশান।
মার্কিন স্বরাষ্ট্রসচিব মাইক পম্পেও বিবৃতি দিয়ে বলেছিলেন, মানবাধিকার লঙ্ঘনের জন্য মার্কিন আইনে তিনজনকেই শাস্তি দেবে আমেরিকা। ওই তিন অফিসার এবং তাঁদের পরিবারের কেউ আমেরিকায় ঢুকতে পারবেন না, বলে বিবৃতিতে নিষেধাজ্ঞা লাগু করেন পম্পেও। এমনকি উইঘুর মুসলিমদের উপর অত্যাচারে জড়িত থাকা যে কোনও চীনা অফিসারের প্রতিই ওই নিষেধাজ্ঞা লাগু করেছিলেন পম্পেও। তারপরই ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে চীন। উইঘুর মুসলিমদের ধর্মীয় বিশ্বাসে নাক গলিয়ে, তাঁদের দলে দলে ডিটেনশন ক্যাম্পে পাঠিয়ে এখন সারা বিশ্বের কাছে নিন্দিত হচ্ছে  চীন।
ছবি:‌ এএনআই‌

জনপ্রিয়

Back To Top