আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ আত্মঘাতী বিস্ফোরণে কেঁপে উঠল ইরানের চাবাহার বন্দর। বৃহস্পতিবার পুলিসের সদর দপ্তরের সামনেই স্থানীয় সময় সকাল ১০টা নাগাদ গাড়িবোমা বিস্ফোরণ হয়। মৃত্যু হয়েছে দুই পুলিসকর্মীর। জখম আরও ২৮ জন। জখমদের মধ্যে পুলিসকর্মী ছাড়া লাগোয়া দোকানপাটের ব্যবসায়ী, পথচলতি মানুষরাও রয়েছেন।  সিস্তান–বালুচিস্তান প্রদেশে অবস্থিত চাবাহারে হওয়া এই বিস্ফোরণ জঙ্গি হামলা বলেই জানিয়েছেন প্রাদেশিক নিরাপত্তার দায়িত্বপ্রাপ্ত ডেপুটি গভর্নর মহম্মদ হাদি মারাশি। আত্মঘাতী জঙ্গি গাড়িবোমা বিস্ফোরণ করানোর পরই বন্দুকধারী জঙ্গিরা এলোপাথাড়ি গুলি ছুঁড়তে ছুঁড়তে পুলিসের সদর দপ্তরে ঢোকার চেষ্টা করে। কিন্তু পুলিসকর্মীদের তৎপরতায় তা ব্যর্থ হয়। প্রায় ১০ মিনিট গুলির লড়াই চলার পর খতম হয় সব জঙ্গিই। তবে কতজন জঙ্গি নিকেশ হয়েছে সেসম্পর্কে এখনও কিছু জানায়নি পুলিস।

জোরালো বিস্ফোরণে সংলগ্ন এলাকার বাড়ির জানলা, দরজার কাচও ভেঙে গিয়েছে। এখনও কোনও জঙ্গি গোষ্ঠী হামলার দায় স্বীকার করেনি।
চাবাহারেই ভারতীয় সহায়তায় ওমান উপসাগরের গভীরে বন্দর তৈরি হয়েছে। সম্প্রতি সেই বন্দর উদ্বোধনে গিয়েছিলেন বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ। পাকিস্তানকে পাশ কাটিয়ে মধ্য এশিয়া এবং ভারতের মধ্যে, ভারতের সহায়তায় পণ্য করিডোর তৈরি করছে ইরান। ফলে চাবাহার বন্দরে এদিনের বিস্ফোরণের ঘটনায় উদ্বিগ্ন দিল্লিও। বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র রবীশ কুমার এদিন চাবাহারে জঙ্গি হামলার কড়া নিন্দা করে মৃতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন। এই সময়ে দিল্লি ইরানের পাশে আছে বলে জানিয়ে রবীশ কুমার বলেছেন, ‘‌সন্ত্রাসের কোনও জাত নেই। দোষীদের সবাইকে বিচারের কাঠগড়ায় আনার চেষ্টা করা হবে।’‌               ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top