আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ‌কম্বোডিয়ার প্রধানমন্ত্রী মহিলাদের ছোট কাপড় পরে ফেসবুকে ছবি বা ভিডিও পোস্টের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করলেন। ন্যাশনাল কাউন্সিল ফর উইমেনকে নির্দেশ দেওয়া হল, তারা যেন ফেসবুকের মতো সোশ্যাল মিডিয়ায় মেয়েদের ছোট কাপড় পরা ছবি বা ভিডিওগুলির উপর তদারকি করে। 
ফেসবুকে নানা ধরনের প্রসাধনী দ্রব্য বিক্রি করার সময়ে হোক, নিজেদের লাইভ ভিডিও হোক বা ছবি তুলে আপলোড করা হোক, সব ক্ষেত্রেই নিষেধাজ্ঞা জারি করবেন বলে জানালেন ‌কম্বোডিয়ার প্রধানমন্ত্রী হুন সেন। ন্যাশনাল কাউন্সিল ফর উইমেনকে তিনি বলেছেন, ‘‌আপনারা মহিলাদের সঙ্গে কথা বলুন। তাঁদের নিষেধ করুন, যেন তাঁরা ফেসবুকে খোলামেলা পোশাক পরে ছবি বা ভিডিও যেন না দেন। এসব আমাদের সংস্কৃতিতে নেই। ছোট পোশাক পরলে তা দেশের সংস্কৃতির ওপর হামলার সমান।’ এখানেই শেষ নয়। তাঁর মতে, মহিলাদের ওপর যে আক্রমণ নেমে আসে, তা আসলে তাঁদের পোশাকের কারণেই। পুরুষেরা পোশাক দেখে উত্তেজিত হয়ে যান বলেই এমনটা ঘটে। ইতিমধ্যেই তাঁর এ প্রকার নারীবিদ্বেষী মন্তব্যের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের ঝড় উঠে গিয়েছে কম্বোডিয়ায়। সরকারের এই নিষেধাজ্ঞা মানবেন না বলে জানিয়েছেন দেশের মহিলারা। 
বুধবার রাষ্ট্রীয় পুলিশের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে একটি ভিডিও পোস্ট করা হয়েছে। সেখানে একজনকে দেখা গিয়েছে, একজন মহিলা কম্বোডিয়ার পরম্পরা ও নারীর সম্মানকে নষ্ট করার জন্য ক্ষমা চাইছেন। জানা গিয়েছে, সেই মহিলা অনলাইন প্রসাধনী ও পোশাকের ব্যবসা করেন। বিজ্ঞাপনের মাধ্যম হিসেবে তিনি বেছে নিয়েছিলেন ফেসবুককে। ছোট পোশাক পরে ভিডিও দেওয়ার জন্য তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছিল। ফেসবুক কর্তৃপক্ষ থেকে এখনও পর্যন্ত প্রকাশ্যে কোনও বক্তব্য রাখা হয়নি। দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক জানিয়েছে, প্রধানমন্ত্রীর এই নির্দেশের পরে কর্তৃপক্ষের তরফে এই বিষয়ে নজরদারি করা হচ্ছে।  ‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top