আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ফের জোর ধাক্কা খেল পাকিস্তান। জুম্মাবারে জোর ধাক্কা খেয়ে কার্যত বেসামাল ইমরান খানের সরকার। শুক্রবার ফিনান্সিয়াল অ্যাকশান টাস্ক ফোর্স প্যারিস থেকে জানিয়ে দিয়েছে ২০২০ সালের জুন মাস পর্যন্ত পাকিস্তানকে ধূসর তালিকাতেই রাখা হবে। কারণ হিসাবে উল্লেখ করা হয়েছে, পাকিস্তানের মাটিতে যে সন্ত্রাসবাদ কার্যকলাপ চলছিল তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারেনি। বরং খামতিই রয়েছে। 
গত ১৬ ফেব্রুয়ারি প্যারিসে বসেছিল ফিনান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্ক ফোর্সের প্লেনারি বৈঠক। সেখানেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ফলে ভারত যে দাবি করে আসছিল পাকিস্তানের বিরুদ্ধে তা অক্ষরে অক্ষরে মিলে গেল বলে মনে করা হচ্ছে। তাদের মাটি থেকে সন্ত্রাসবাদ নির্মূল করা তো হয়নি, বরং ক্রমাগত ইন্ধন দেওয়া হচ্ছে বলে দাবি করে আসছিল ভারত। এবার ঘুরিয়ে যেন সেই কথাটাই বলল এফএটিএফ। ফলে আর্থিকভাবে আরও কোণঠাসা হতে চলেছে পাকিস্তান বলে মনে করছেন কূটনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। 
এখানেই শেষ নয়। এই ধূসর তালিকা ততক্ষণ থাকবে যতক্ষণ না পর্যন্ত ২৭টি অ্যাকশন প্ল্যান কার্যকর করছে পাকিস্তান। গত অক্টোবর মাসে এফএটিএফ সিদ্ধান্ত নিয়েছিল পাকিস্তানকে ধূসর তালিকাভুক্ত করা হবে। কারণ পাকিস্তান জঙ্গি সংগঠন লস্কর–ই–তৈবা, জৈশ–ই–মহম্মদের কাছে আসা আর্থিক তহবিল আটকাতে পারেনি। এখনও পাকিস্তানের মাটিতে একইভাবে জঙ্গি কার্যকলাপ ঘটে চলেছে বলে অভিযোগ। 
উল্লেখ্য, পাকিস্তানকে সাবধান করার পর তারা আইনে বেশকিছু সংশোধনী আনে। যদিও তা বাস্তবে কতটা কার্যকর করা গিয়েছে তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। ফিনান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্ক ফোর্সের সামনে নিজেদের ভাবমূর্তি তুলে ধরতে মুম্বই হামলার মাস্টারমাইন্ড হাফিজ সৈয়দকে দুটি মামলায় ১১ বছরের জেল হেফাজতের নির্দেশ শোনানো হয়। তারপরও জুন মাস পর্যন্ত পাকিস্তানকে ধূসর তালিকায় রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে স্বান্ত্বনা একটাই এখনও কালো তালিকাভুক্ত হয়নি পাকিস্তান। 

জনপ্রিয়

Back To Top