আজকাল ওয়েবডেস্ক: অবশেষে কি রোহিঙ্গাদের বাসস্থানের সমস্যা মিটতে চলেছে?‌ ইঙ্গিত কিন্তু তেমনই। খুব শীঘ্রই অস্থায়ী ক্যাম্পে থাকা রোহিঙ্গাদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা করছে বাংলাদেশ সরকার। সে দেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রোহিঙ্গাদের জন্য নতুন বাসস্থানের কথা ঘোষণা করেছেন। বঙ্গোপসাগরে ভাসান চর নামে এক দ্বীপে রোহিঙ্গাদের থাকার ব্যবস্থা হতে চলেছে। বর্ষা আসার আগেই শরণার্থী শিবির থেকে ১০ লক্ষ রোহিঙ্গাকে ওই দ্বীপে পাঠানো হবে। চীন এবং ব্রিটেনের সহায়তায় দ্বীপটিকে মানুষের বসবাসের উপযুক্ত করা হচ্ছে। কক্সবাজারের শিবিরে বর্তমানে ৭০ লক্ষ রোহিঙ্গা রয়েছেন। কিন্তু প্রতিনিয়ত সেখানে লোকসংখ্যা বাড়তে থাকায় বাসস্থানের জায়গা কম পড়ছে।

আর সেটার মোকাবিলা করতেই বাংলাদেশ সরকারের এই উদ্যোগ। এছাড়া বর্ষার মরশুমে ওই এলাকায় কিছু জায়গায় বন্যা দেখা দিতে পারে। সমস্যায় পড়তে পারেন প্রায় ১০ লক্ষ রোহিঙ্গা। তাই যত দ্রুত সম্ভব রোহিঙ্গাদের সরিয়ে নেওয়ার চেষ্টা চলছে। বাংলাদেশ সরকার থেকে বলা হয়েছে, ওই দ্বীপ থেকে রোহিঙ্গারা মায়ানমারে ফিরতে চাইলে বা অন্য কোনও দেশে শরণার্থী হিসেবে যেতে চাইলে যেতে পারবেন। তবে সেখানে থাকার জন্য বিশেষ কোনও নিয়ম কানুন করা হচ্ছে না। পরিবর্তে ৪০ থেকে ৪৫ জনের একটি সশস্ত্র বাহিনী রাখা হতে পারে। তবে ওই দ্বীপে বসবাসকারী রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশের পাসপোর্ট কিংবা ভোটদাতার পরিচয়পত্র দেওয়া হবে না। আপাতত দ্বীপটিকে থাকার উপযোগী করার ব্যবস্থা চলছে। ‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top