Rain Forest: পাহাড়ের গায়ে গর্ত, গর্তের নীচে আদিম অরণ্য! যেন জুল ভার্নের কল্পবিজ্ঞান 

আজকাল ওয়েবডেস্ক: পাহাড়ের গায়ে গুহার মতো প্রকাণ্ড সব গর্ত যাকে বলে সিঙ্কহোল।

সেই গর্তের মধ্যেই খোঁজ পাওয়া গেল আদিম এক অরণ্যের। যথেষ্ট বড় সে অরণ্য। ১৩০ মিটার উচ্চতার গাছও রয়েছে সেখানে। এই অবিশ্বাস্য আবিষ্কারটি হয়েছে দক্ষিণ চীনের গুয়াংঝি এলাকায়। পাহাড়ের তলায় ৬৩০ ফুট গভীরে এই অরণ্যের মাটি। অরণ্য ছড়িয়ে রয়েছে ১৭৬ মিলিয়ন কিউবিক ফুট এলাকা জুড়ে। 
চীনের বিজ্ঞানীরা মনে করছেন, ওই অরণ্যে এমন ইউনিক প্রজাতির প্রাণ রয়েছে যা এখনও পর্যন্ত আবিষ্কৃত হয়নি। গুয়াংঝি এলাকায় সিঙ্কহোল প্রচুর। এরকম ৩০টির মধ্যে এটাই ছিল সবথেকে বড় গুহা। তার ভেতরেই খুঁজে পাওয়া গেল এই আদিম অরণ্যানী। এই বিস্ময়কর অভিযানের নেতৃত্ব দিয়েছেন যিনি, সেই চেন লিশিন বলছেন, ‘বিজ্ঞান এখনও খোঁজ পায়নি এমন প্রজাতির (Species) খোঁজ পাওয়া গেলে আমি আশ্চর্য হব না।’

 

আরও পড়ুন: রেভ পার্টিতে ড্রাগ ওভারডোজ! মৃত বছর ২৩-এর তথ্যপ্রযুক্তি কর্মী 


চীনের ওই অংশে পাহাড়ের গায়ে এই গর্তের সৃষ্টি হয়েছে জলধারায় পাথর ক্ষয়ে গিয়ে। স্থানীয় মানুষের ভাষায় সিঙ্কহোলকে বলা হয় ‘শেনইয়াং তিয়ানকেং’ যার অর্থ ‘অতল গহ্বর’। গুয়াংঝির এক দৈনিক সংবাদপত্রে বলা হয়েছে, সিঙ্কহোলটি যেমন বিপজ্জনক, খাড়াই, অদ্ভুত ঠিক সেরকমই সুন্দর। গবেষক দলের সদস্যেরা ‘সিঙ্গল রোপ টেকনিক’ ব্যবহার করে ১০০ ফুট নীচে নামতেই গাছপালার দেখা পান। এরপর গর্তের তলদেশে নামতে তাঁরা দেখেন, এক রেনফরেস্টের মধ্যে দাঁড়িয়ে আছেন তাঁরা।            

আকর্ষণীয় খবর