আজকাল ওয়েবডেস্ক: ‌১৪৯ জন যাত্রী এবং ৮ জন ক্রু মেম্বার সহ মোট ১৫৭ জনকে নিয়ে ভেঙে পড়েছিল ইথিওপিয়ান এয়ারলাইন্সের বিমান ইটি–৩০২। বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স ৮ মডেলের ওই বিমান ভেঙে পড়ার পরেই বিভিন্ন দেশ সিদ্ধান্ত নিয়েছিল বাতিল করা হবে এই বিশেষ মডেলের বিমানের উড়ান। সেই পথেই এক ধাপ এগোলো ভারত। দেশের বিমান নিয়ামক সংস্থা ডিজিসিএ সিদ্ধান্ত নিয়েছে, ভারতে যে সমস্ত বিমান সংস্থার কাছে এই মডেলের প্লেন রয়েছে আপাতত সেগুলিকে বসিয়ে দেওয়া হবে। এমনকী বুধবার বিকেল চারটের মধ্যে ৭৩৭ ম্যাক্স ৮ মডেলের সব বিমানকে অবতরণ করে যেতে বলার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। মার্কিনী সংস্থার তৈরি এই বিমানটি সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়। কিন্তু রবিবারের ঘটনার পর যাত্রীদের সুরক্ষার কথা ভেবেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। 
বুধবার বিকেল চারটের সময় বেসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রকের সচিব সমস্ত বিমানসংস্থাদের নিয়ে জরুরি বৈঠক ডেকেছেন। জানা গিয়েছে, ভারতে স্পাইস জেট এবং জেট এয়ারওয়েজের কাছে এই বিশেষ মডেলের বিমান রয়েছে। স্পাইস জেটের কাছে থাকা এই মডেলের বিমান সংখ্যা ১৩। অন্যদিকে জেট এয়ারওয়েজের কাছে ৫টি বোয়িং ৭৩৭ বিমান রয়েছে। এই দুই বিমানসংস্থাই ডিজিসিএ–এর নির্দেশের পরই এই বিশেষ বিমানটিকে বসিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। রবিবার স্থানীয় সময় সকাল ৮টা ৩৮ মিনিটে ইথিওপিয়ার রাজধানী আদ্দিস আবাবা শহর থেকে কেনিয়ার রাজধানী নাইরোবির উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছিল ফ্লাইট ইটি–৩০২। উড়ানের ৬ মিনিটের মধ্যেই ভেঙে পড়ে বিমানটি। মৃত্যু হয়েছে ১৫৭ জন যাত্রীরই। তাঁদের মধ্যেই ছিলেন রাষ্ট্রপুঞ্জের ভারতীয় উপদেষ্টা শিখা গর্গ। ছিলেন আরও ৩ ভারতীয়। এই দুর্ঘটনার পরেই ডিজিসিএ সিদ্ধান্ত নিয়েছে আপাতত বাতিল করা হবে বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স ৮ মডেলের বিমানগুলির উড়ান। ভারতীয় বিমান মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে, যাত্রীদের সুরক্ষাই সবার আগে। তাই নিরাপত্তা বজায় রাখতেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।
স্পাইস জেট জানিয়েছে, ‘‌যাত্রী, বিমান কর্মী, বিমান চালকদের নিরাপত্তা ও সুরক্ষা আমাদের কাছে সবার আগে। তাই এই বিমানটিকে বাতিল করে দেওয়ার সিদ্ধান্তে আমাদের কোনও সমস্যা নেই।’‌ বিমান মন্ত্রকের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, যতদিন না এই বিশেষ বিমানটির সুরক্ষা ব্যবস্থা আরও আঁটোসাঁটো না হচ্ছে, ততদিন এই বিমানটি কোনও বিমান সংস্থা ব্যবহার করবে না। 

জনপ্রিয়

Back To Top