পৃথিবীর বৃহত্তম ইগলু ক্যাফে গুলমার্গে! ভিড় জমাচ্ছেন পর্যটকরা, দেখুন অন্দরসজ্জা

শীত এখনও পুরোপুরি বিদায় নেয়নি। প্রতি বছর ব্যাপক তুষারপাতের কারণে কাশ্মীরে এক নৈসর্গিক রূপ ফুটে ওঠে। বরফে ঢাকা কাশ্মীর যেন কোনও রূপকথার রাজ্য! এবছরেও তা অব্যাহত। তবে নয়া চমক হল, ইগলু ক্যাফে। সুইজারল্যান্ডে ইগলু ক্যাফের কথা অনেকেই শুনেছেন। কিন্তু আয়তনে কাশ্মীরের ইগলু ক্যাফে সুইজারল্যান্ডকে বর্তমানে পিছনে ফেলে দিয়েছে। এই ক্যাফের জনপ্রিয়তাও ছড়িয়ে পড়েছে চতুর্দিকে।

কাশ্মীরের গুলমার্গে তৈরি হয়েছে এই ইগলু ক্যাফে। জনপ্রিয় স্কি রিসোর্টের মালিক এটি তৈরি করেছেন। আগের বছর এটি তৈরি হলেও, চলতি বছরে আয়তনে আরও বড় হয়েছে।

কাশ্মীরের গুলমার্গে তৈরি হয়েছে এই ইগলু ক্যাফে। জনপ্রিয় স্কি রিসোর্টের মালিক এটি তৈরি করেছেন। আগের বছর এটি তৈরি হলেও, চলতি বছরে আয়তনে আরও বড় হয়েছে।

ক্যাফেটি ৩৭.৫ ফুট লম্বা এবং ৪৪.৫ ফুট আয়তনে। ক্যাফের মধ্যে রয়েছে ১০টি টেবিল। মোট ৪০ জন একসঙ্গে বসতে পারেন এই ক্যাফেতে।

ক্যাফেটি ৩৭.৫ ফুট লম্বা এবং ৪৪.৫ ফুট আয়তনে। ক্যাফের মধ্যে রয়েছে ১০টি টেবিল। মোট ৪০ জন একসঙ্গে বসতে পারেন এই ক্যাফেতে।

মোট ২৪ জন কর্মী ৬৪ দিন ধরে এই ইগলু ক্যাফে তৈরি করেছেন। মার্চ মাস পর্যন্ত এই ক্যাফে খোলা থাকবে বলেই জানিয়েছেন তিনি।

মোট ২৪ জন কর্মী ৬৪ দিন ধরে এই ইগলু ক্যাফে তৈরি করেছেন। মার্চ মাস পর্যন্ত এই ক্যাফে খোলা থাকবে বলেই জানিয়েছেন তিনি।

ইগলু ক্যাফের মধ্যে চা, কফির ব্যবস্থা তো রয়েইছে। এর ভিতরে ১ ঘণ্টা পর্যন্ত থাকতে পারবেন পর্যটকরা।

ইগলু ক্যাফের মধ্যে চা, কফির ব্যবস্থা তো রয়েইছে। এর ভিতরে ১ ঘণ্টা পর্যন্ত থাকতে পারবেন পর্যটকরা।

সুইজারল্যান্ডের ইগলু ক্যাফে গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে জায়গা করে নিয়েছে। তবে আয়তনে যেহেতু এটি আরও বড়, তাই এটি গিনেস বুকে স্থান পাবে বলেই আশাবাদী ক্যাফের মালিক।

সুইজারল্যান্ডের ইগলু ক্যাফে গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে জায়গা করে নিয়েছে। তবে আয়তনে যেহেতু এটি আরও বড়, তাই এটি গিনেস বুকে স্থান পাবে বলেই আশাবাদী ক্যাফের মালিক।