আগ্নেয়গিরির অগ্নুৎপাতের পর ভয়ঙ্কর সুনামি, দেখুন টোঙ্গার স্যাটেলাইট ইমেজ

প্রশান্ত মহাসাগরের জলমগ্ন আগ্নেয়গিরির অগ্নুৎপাত থেকে সৃষ্ট ভয়ঙ্কর সুনামি আছড়ে পড়ল টোঙ্গায়। ১৭০টি দ্বীপ নিয়ে গঠিত টোঙ্গায় প্রায় ১ লক্ষ মানুষের বসবাস। শনিবার সুনামি আছড়ে পড়ার পর ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে টোঙ্গায়। তবে এখনও পর্যন্ত কোনও হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। টোঙ্গার উপকূলগুলিতে আছড়ে পড়ে সুনামির বিশাল ঢেউ। এর পরেই গোটা বিশ্বের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয় টোঙ্গার। এছাড়াও আগ্নেয়গিরির অগ্নুৎপাতের পর ছাইয়ে ঢেকে গেছে গোটা টোঙ্গা। ফলে স্বাস্থ্য নিয়ে বড়সড় সংকট দেখা দিয়েছে। কারণ বিচ্ছিন্ন এই দ্বীপটির পানীয় জলও দূষিত হয়ে পড়েছে। মার্কিন ফটোগ্রাফার ম্যাক্সারের হাত ধরে টোঙ্গার স্যাটেলাইট ইমেজ দেখুন।

শনিবার ভয়ঙ্কর সুনামির পর কোনও মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়নি। তবে একজন ব্রিটিশ নারী নিখোঁজ হয়েছেন বলে জানা গেছে।

শনিবার ভয়ঙ্কর সুনামির পর কোনও মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়নি। তবে একজন ব্রিটিশ নারী নিখোঁজ হয়েছেন বলে জানা গেছে।

টোঙ্গার বাসিন্দাদের মতে, কয়েক দশকের মধ্যে এটিই সবচেয়ে ভয়ঙ্কর অগ্নুৎপাত।

টোঙ্গার বাসিন্দাদের মতে, কয়েক দশকের মধ্যে এটিই সবচেয়ে ভয়ঙ্কর অগ্নুৎপাত।

রাজধানী নুকু’য়ালোফা থেকে ২১ কিলোমিটার পশ্চিমে হিহিফো উপদ্বীপের হা’তাফু বিচ রিজোর্ট সুনামির পর নিশ্চিহ্ন হয়ে গেছে বলেই সূত্রের খবর।

রাজধানী নুকু’য়ালোফা থেকে ২১ কিলোমিটার পশ্চিমে হিহিফো উপদ্বীপের হা’তাফু বিচ রিজোর্ট সুনামির পর নিশ্চিহ্ন হয়ে গেছে বলেই সূত্রের খবর।

তবে সেখানেও কারও মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়নি। সুনামি সতর্কতার কারণে সকলে আগেই জঙ্গলে গিয়ে আশ্রয় নিয়েছিলেন বলে জানা যাচ্ছে।

তবে সেখানেও কারও মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়নি। সুনামি সতর্কতার কারণে সকলে আগেই জঙ্গলে গিয়ে আশ্রয় নিয়েছিলেন বলে জানা যাচ্ছে।

অগ্নুৎপাতের ছাইয়ে শুধু জল দূষিত হয়েছে তাইই নয়, উপকূলের ঘরের মধ্যেও ঢুকে গিয়েছে ধোঁয়া। প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের পর অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ এই মুহূর্তে টোঙ্গায়।

অগ্নুৎপাতের ছাইয়ে শুধু জল দূষিত হয়েছে তাইই নয়, উপকূলের ঘরের মধ্যেও ঢুকে গিয়েছে ধোঁয়া। প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের পর অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ এই মুহূর্তে টোঙ্গায়।