World Record: একটি ডালে ৮৩৯টি টোম্যাটো! নয়া নজির গড়ে গিনেস বইয়ে নাম উঠল স্মিথের

ফুল বাগান, বা কিচেন গার্ডেনের প্রতি একটু আধটু শখ, আজকের যুগে প্রায় সকলেরই রয়েছে। এতে এই শখ যে একদিন বিশ্ব রেকর্ড গড়তে পারে, তার স্বপ্ন কজনেই বা দেখেন। সম্প্রতি অসম্ভবকে সম্ভব করে গিনেস বুক অব অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে নাম উঠল ব্রিটেনের ৪৩ বছরের ডগলাস স্মিথের। যিনি একবছরের মধ্যে একটি গাছের ডালে ৮৩৯টি টোম্যাটো ফলিয়েছেন। পেশায় তিনি তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থার অধিকর্তা। কিন্তু গার্ডেনিং তাঁর শখ। দিনের পর দিন লাগাতার পরিশ্রমের পর বিশ্ব রেকর্ড গড়লেন স্মিথ।

প্রমাণ রাখার জন্য স্থানীয় পুলিশকেও খবর দিয়েছিলেন স্মিথ।

প্রমাণ রাখার জন্য স্থানীয় পুলিশকেও খবর দিয়েছিলেন স্মিথ।

এভাবেই ওই গাছের একটি ডালে ৮৩৯টি টোম্যাটো ফলেছে একবছরের মধ্যে।

এভাবেই ওই গাছের একটি ডালে ৮৩৯টি টোম্যাটো ফলেছে একবছরের মধ্যে।

ব্রিটেনের সবচেয়ে বড় টোম্যাটো গাছ বানানোর রেকর্ডও সৃষ্টি করেছিলেন স্মিথ।

ব্রিটেনের সবচেয়ে বড় টোম্যাটো গাছ বানানোর রেকর্ডও সৃষ্টি করেছিলেন স্মিথ।

শুরুতেই কিছু বীজ থেকে টোম্যাটো গাছের চারা তৈরি করেন স্মিথ। পরে নিজে হাতে চারাগাছের যত্ন নিতে শুরু করেন।

শুরুতেই কিছু বীজ থেকে টোম্যাটো গাছের চারা তৈরি করেন স্মিথ। পরে নিজে হাতে চারাগাছের যত্ন নিতে শুরু করেন।

২০১০ সালে একটি ডালে ৪৪৮টি টোম্যাটো ফলিয়ে রেকর্ড সৃষ্টি করেছিলেন গ্রাহাম ট্যান্টার। সেই রেকর্ড ভাঙলেন স্মিথ।

২০১০ সালে একটি ডালে ৪৪৮টি টোম্যাটো ফলিয়ে রেকর্ড সৃষ্টি করেছিলেন গ্রাহাম ট্যান্টার। সেই রেকর্ড ভাঙলেন স্মিথ।

কাজের চাপের কারণে সপ্তাহে শুধুমাত্র ছুটির দিনে তিন থেকে চার ঘণ্টা বিশেষ যত্ন নিতেন ওই টোম্যাটো গাছের।

কাজের চাপের কারণে সপ্তাহে শুধুমাত্র ছুটির দিনে তিন থেকে চার ঘণ্টা বিশেষ যত্ন নিতেন ওই টোম্যাটো গাছের।