আজকাল ওয়েবডেস্ক: অতিমারীর দুঃস্বপ্নের দিনে কালোবাজারি শুরু হয়েছে অক্সিজেন নিয়ে। দাম তিন চারগুণ বেড়েছে পালস অক্সিমিটারেরও। এই যন্ত্রটি শরীরের অক্সিজেন স্যাচুরেশন মাত্রা মাপতে কাজে লাগে তা মোটামুটি সবাই জানেন এখন। কিন্তু এটি ব্যবহারের সঠিক পদ্ধতি নিয়ে খানিক ধোঁয়াশা আছে। কোন আঙুলে সেট করব, কতক্ষণ রাখব ইত্যাদি বিবিধ প্রশ্ন রয়েছে। এই প্রতিবেদনে রইল পালস অক্সিমিটার ব্যবহার করার প্রতিটি ধাপ। 
১) নখ এবং যেন নেলপালিশ বা হেনা জাতীয় কিছু না থাকে। 
২) হাত ঠিকঠাক তাপমাত্রায় আছে কি না দেখে নিতে হবে। যদি মনে হয় একটু ঠান্ডা তাহলে গরম করে নিন। 
৩) অক্সিমিটার লাগানোর আগে বিশ্রাম নিয়ে নিন, শরীর হোক রিল্যাক্সড। 
৪) তর্জনী অথবা মধ্যমায় যন্ত্রটি সেট করুন। 
৫) হাতটি এবার বুকের ওপর, হৃৎপিণ্ডের কাছাকাছি রাখুন এবং হাত নড়াচড়া বন্ধ করুন। 
৬) অন্তত এক মিনিট লাগিয়ে রাখুন অক্সিমিটারটি যতক্ষণ না রিডিং স্থির হয়। 
৭) সবথেকে বেশি যে সংখ্যাটি পাঁচ সেকেন্ড ধরে স্থির থাকবে সেটাই লিখে রাখুন। ওটাই আপনার অক্সিজেন স্যাচুরেশন মাত্রা।  
সাধারণত, একজন সুস্থ মানুষের শরীরে এই মাত্রা থাকে ৯৫ শতাংশ বা তার বেশি। যাঁদের ফুসফুসের রোগ অথবা নিদ্রাহীনতার সমস্যা আছে তাদের ক্ষেত্রে ৯০ শতাংশের আশেপাশে থাকতেই পারে। কিন্তু বাড়িতে বসে বা রিল্যাক্সড অবস্থায় যদি ৯০-এর নীচে হয় তবে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

জনপ্রিয়

Back To Top