আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ একদিকে পড়াশোনা করার জন্য পড়ুয়াদের সমস্ত বাধা অতিক্রম করতে দেখা যাচ্ছে। অন্যদিকে ক্ষমতাশালীদের পায়ের ওপর পা তুলে বসে থাকা। পড়ুয়াদের কষ্ট কমানোর কোনও প্রকার চেষ্টা দেখা যাচ্ছে না। আর আজ তাই কেউ গাছে উঠছেন, আর নয়ত, পাহাড় চড়ছেন। কী জন্য?‌ নেটওয়ার্কটুকু পেলে তাঁরা বাকিদের সঙ্গে অনলাইন ক্লাসে যোগদান করতে পারবেন। রাজস্থানের দারুরা গ্রামের হরিশ। জ্বহর নবোদয় বিদ্যালয়ের ছাত্র। গত দেড় মাস ধরে রোজ সকাল ৮টায় বাড়ি থেকে পাহাড়ে ওঠেন। চেয়ার টেবিল নিয়ে যান। ক্লাস শেষ হলে দুপুর দু’‌টোয় ফিরে আসেন। আবার অন্যদিকে ধানপুরার এক ছাত্রী। রোজ গাছে চড়ে ক্লাস করতে হয়। কারণ তাঁদের এলাকায় নেটওয়ার্কের খুব সমস্যা। এরকম একাধিক উদাহরণ পাওয়া যাবে গোটা দেশজুড়ে। হয় ফোন আছে, কিন্তু নেটওয়ার্ক নেই। আবার নেটওয়ার্ক আছে। কিন্তু স্মার্টফোনটাই নেই। ক্লাসে যোগদান কেমন করে করবে?‌ এই কারণো কেরলের অষ্টম শ্রেণীর এক ছাত্রী আত্মহত্যা করেছিল। তারপরে কেরল সরকার কিছু কিছু পরিবর্তন আনার চেষ্টা করছে। টেলিভিশন বাড়িতে থাকে, তাই বেশিরভাগ ক্লাস টেলিভিশনে করানো। বা বলা যেতে পারে, গোষ্ঠী ধরে একটি করে ল্যাপটপের প্রস্তাবও দেওয়া হয়েছিল।

জনপ্রিয়

Back To Top