চিরদীপ ভট্টাচার্য: সব কিছু ঠিকঠাক চললে চলতি সপ্তাহেই প্রকাশিত হবে ২০১৮–র সর্বভারতীয় মেডিক্যাল জয়েন্ট ‘‌ন্যাশনাল এলিজিবিলিটি–কাম–এন্ট্রান্স টেস্ট’‌ বা এনইইটি–র বিজ্ঞপ্তি। বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে এবারের পরীক্ষা ১০ মে হওয়ার সম্ভাবনা জানানো হলেও সবার আগে ‘‌সোপান’‌–এর পাতাতেই উল্লেখ করা হয়েছিল, প্রথা মেনে মে মাসের প্রথম রবিবার অর্থাৎ, ৬ মে হবে এনইইটি–২০১৮। সেইমতোই প্রস্তুতি নেওয়া চলছে আয়োজক সংস্থা সেন্ট্রাল বোর্ড অফ সেকেন্ডারি এডুকেশন বা সিবিএসই–তে। বোর্ডের মুখপাত্র রমা শর্মা জানালেন, ‘‌বরাবরের প্রথা হল মে মাসের প্রথম বা শেষ রবিবারে সর্বভারতীয় মেডিক্যাল জয়েন্ট আয়োজিত হয়। সেই অনুযায়ী ২০১৮–র এনইইটি ৬ মে তারিখেই করানোর প্রস্তুতি চূড়ান্ত পর্যায়ে। আশা করা যায় ১ জানুয়ারির আশেপাশেই বোর্ড এই সংক্রান্ত দরকারি বিজ্ঞপ্তিগুলি প্রকাশ করতে পারবে।’
এবারের পরীক্ষায় গতবারের সাপেক্ষে বেশ কয়েকটা বড় মাপের বদল আসতে চলেছে। সেগুলো একে একে দেখে নেওয়া যেতে পারে।
• একটি প্রশ্নেই পরীক্ষা:‌ গতবারের ঝামেলা থেকে শিক্ষা নিয়ে (‌এবং সর্বোচ্চ আদালতে দেওয়া মুচলেকা মেনে)‌ সিবিএসই এ বছর বিভিন্ন মাধ্যমে ভিন্ন প্রশ্নপত্র করার ভুল করবে না। একই প্রশ্ন ইংরেজি ও হিন্দির পাশাপাশি আটটি আঞ্চলিক ভাষায় (বাংলা, ওডিয়া, তামিল, তেলুগু, অহমিয়া, গুজরাটি, মরাঠি ও কন্নড়)‌ করা হবে। এখানে উর্দু কেন নেই, সে প্রশ্নেও দেশে ঝড় ওঠার সম্ভাবনা।
• ২০১৭–র সিলেবাস ২০১৮–তেও:‌ সিলেবাস অপরিবর্তিতই থাকছে। সিবিএসই একটা চেষ্টা করেছিল, যাতে কেন্দ্রীয় বোর্ডগুলোর পাশাপাশি অন্তত কয়েকটি রাজ্যের ১০+‌২ বোর্ডের সিলেবাস মেনে এবারের এনইইটি–র সিলেবাস করা যায়। আপাতত সে গুড়ে বালি।
• ওপেন স্কুলের ১০+‌২ সায়েন্স পড়ুয়ারাও যোগ্য:‌ সদ্যই সুপ্রিম কোর্ট তঁাদের রায়ে জানিয়েছেন, ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ ওপেন স্কুলিং (‌এনআইওএস)‌–এর সঙ্গে রাজ্যস্তরীয় মুক্ত বিদ্যালয়গুলির ১০+‌২ স্তরীয় বিজ্ঞান বিভাগের পড়ুয়ারাও নম্বরের নির্ধারিত যোগ্যতামান পূরণ সাপেক্ষে এনইইটি–তে বসতে পারবেন।
• হোমিওপ্যাথি, আয়ুর্বেদ, ইউনানির ডিগ্রি কোর্সে ভর্তিও এনইইটি দিয়েই:‌ অনেক আগেই ‘‌সোপান’‌–এর পাতায় এই খবর জানানো হয়েছিল। এর অর্থ হল, ২০১৮–১৯ শিক্ষাবর্ষ থেকে ব্যাচেলর অফ হোমিওপ্যাথিক মেডিসিন অ্যান্ড সার্জারি (‌বিএইচএমএস)‌, ব্যাচেলর অফ আয়ুর্বেদিক মেডিসিন অ্যান্ড সার্জারি (‌বিএএমএস)‌ এবং ব্যাচেলর অফ ইউনানি মেডিসিন অ্যান্ড সার্জারি (‌বিইউএমএস)‌–এর মতো আয়ুষ তালিকাভুক্ত কোর্সগুলিতে ভর্তি হওয়ার প্রবেশিকা ‘‌জেনপওহ–২’‌ বা অনুরূপ রাজ্যস্তরীয় পরীক্ষাগুলো আর নেওয়া যাবে না। ফিজিওথেরাপি, মেডিক্যাল ল্যাব টেকনোলজি, বি এসসি নার্সিং ইত্যাদির মতো প্যারামেডিক্যাল কোর্সে ২০১৮–১৯ শিক্ষাবর্ষে ভর্তির ক্ষেত্রে কোন পরীক্ষা প্রযোজ্য হবে, তা জানার জন্য সিবিএসই জয়েন্ট সেক্রেটারি সংযম ভরদ্বাজের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা হলেও কথা বলা যায়নি।
পরীক্ষা ৬ মে, রবিবার
ফর্মপূরণ ফেব্রুয়ারিতে
১০ ভাষায় একই প্রশ্ন

জনপ্রিয়

Back To Top