আজকাল ওয়েবডেস্ক:  এইমস্‌–এ শুক্রবার থেকে শুরু হয়ে গেল মানবশরীরে দেশীয় পদ্ধতিতে তৈরি প্রতিষেধক কোভ্যাক্সিন দেওয়ার পরীক্ষামূলক প্রথম পর্ব। ৩০ বছরের এক যুবকের শরীরে দেওয়া হয়েছে ওই ওষুধ। স্ক্রিনিং রিপোর্ট আসলে শনিবার আরও কয়েকজনের শরীরে দেওয়া হবে ওষুধ।
এইমস্‌–এর এই পরীক্ষায় গত শনিবার থেকে এপর্যন্ত কমপক্ষে ৩৫০০জন স্বেচ্ছাসেবী নাম নথিভুক্ত করিয়েছিলেন। যাঁদের মধ্যে কমপক্ষে ২২জনের স্ক্রিনিং চলছে। একথা জানালেন এইমস্‌–এর সেন্টার ফর কমিউনিটি মেডিসিনের অধ্যাপক সঞ্জয় রাই। তিনি বললেন, যে যুবতকের শরীরে কোভ্যাক্সিন দেওয়া হয়েছে, তিনি স্থানীয় বাসিন্দা। দিন দুয়েক আগে তাঁর স্ক্রিনিং হয় এবং শরীরের সব হেল্থ প্যারামিটার স্বাভাবিক আছে। তাঁর কো–মর্বিডিটি পরিস্থিতিও নেই। শুক্রবার দুপুর দেড়টা নাগাদ ০.‌৫ মিলিলিটার ইন্ট্রামাস্কিউলার ইঞ্জেকশনের মাধ্যমে তাঁর শরীরে কোভ্যাক্সিন দেওয়া হয়। প্রথম দুঘণ্টা তাঁকে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছিল। তারপর আগামী সাতদিন তাঁর শারীরিক গতিবিধি নজরে রাখবেন চিকিৎসকরা।
আইসিএমআর যে ১২টি জায়গায় কোভ্যাক্সিনের পরীক্ষার জন্য মনোনীত করেছে, তার মধ্যে অন্যতম এইমস্‌। প্রথম পর্বে  ১৮–৫৫ বছরের সুস্থ মানুষ, যাঁদের কো–মর্বিডিটির পরিস্থিতি নেই তেমন ৩৭৫জনের শরীরে এই ওষুধ দেওয়া হবে। তাঁদের মধ্যে ১০০জনকেই দেওয়া হবে এইমস্‌–এ। পরের পর্বে ওই ১২টি জায়গাতেই ৭৫০জনকে কোভ্যাক্সিন দেওয়া হবে। 

জনপ্রিয়

Back To Top