আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ১৩ বছর আগে স্বাস্থ্য আধিকারিক এবং সমাজসেবীরা দাবি করেছিলেন, কুষ্ঠ রোগ নিয়ে আর মাথাব্যথার কারণ নেই। ধীরে ধীরে নির্মূল হচ্ছে এই ব্যাধি। এমনকী ২০১৭ সালের ১ ফেব্রুয়ারিতে সংসদে বাজেট পেশের সময় কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি বলেছিলেন, ২০১৮ সালের মধ্যে দেশ থেকে পুরোপুরি কুষ্ঠরোগ দূর করা হবে। কিন্তু কোথায় কী!‌ পুরোপুরি দূর করা তো ফের নতুন করে আতঙ্ক ছড়াচ্ছে এই রোগ। কেন্দ্রীয় মন্ত্রকের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৭ সালেই ১ লক্ষ ৩৫ হাজার ৪৮৫ জন কুষ্ঠ রোগে আক্রান্ত হয়েছেন। অর্থাৎ প্রতি চারমিনিটে একজন কুষ্ঠ রোগীর সন্ধান মিলেছে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি কুষ্ঠরোগীর সন্ধান মিলেছে উত্তরপ্রদেশে। ২০১৭ সালে সেখানে প্রায় ১৩, ৫০০ জন এই রোগে আক্রান্ত হয়েছিলেন। এরপরই রয়েছে বিহারের স্থান। সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা ১৩,০৮১। তৃতীয় ও চতুর্থ স্থানে রয়েছে মহারাষ্ট্র (‌৯,৮৮৭)‌ এবং পশ্চিমবঙ্গ। এ রাজ্যে ২০১৭ সালে কুষ্ঠরোগে আক্রান্তের সংখ্যা ৮,৫৭৮ জন। এই দেড় লক্ষ আক্রান্তের মধ্যে প্রায় ৬৮ হাজার রোগীর শুশ্রুষা হয়েছে প্রাথমিক পর্যায়ে। কিন্তু বাকিদের ক্ষেত্রে রোগ অনেকটাই ছড়িয়ে পড়েছে। যেমন–তেলঙ্গনার আদিলাবাদ জেলার কুশানপল্লীতে প্রায় ২৫০ ঘরের মধ্যে ১৯ জনের এই রোগ ধরা পড়েছে। গোটা বিশ্বে যত জন এই রোগে আক্রান্ত হয়েছেন, তার মধ্যে ৬০ শতাংশই ভারতীয়। যা সত্যিই খুব চিন্তার। আর তাই বিভিন্ন মহলে প্রশ্ন উঠছে, যেখানে এত পরিমাণে রোগীর সংখ্যা বেড়ে চলেছে, সেখানে কীভাবে পুরোপুরি এই রোগ নির্মূল হওয়ার দাবি করছে কেন্দ্রীয় সরকার।‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top