আজকালের প্রতিবেদন: বেসরকারি স্কুলগুলির আয় ‍ও ব্যয়ের তথ্য সন্ধানে দুই সদস্যের কমিটি গঠন করল কলকাতা হাইকোর্ট। আগামী দু’‌সপ্তাহের মধ্যে কমিটিকে রিপোর্ট জমা দিতে বলা হয়েছে। ৭ সেপ্টেম্বরের পর ফের এই মামলার শুনানি হবে। বেসরকারি স্কুলের ফি মকুব–সহ একাধিক দাবি তুলে দায়ের হওয়া মামলার শুনানিতে সোমবার এই কমিটি তৈরির নির্দেশ দিয়েছিল বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চ। কমিটির সদস্য হিসেবে ডিভিশন বেঞ্চ যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সুরঞ্জন দাসের নাম প্রস্তাব করেছিল। মঙ্গলবার দ্বিতীয় সদস্য হিসেবে গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন উপাচার্য এবং উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদের প্রাক্তন সভাপতি গোপা দত্তের নাম জানায় আদালত। রাজ্যের প্রতিনিধি হিসেবে কে থাকবেন, তাঁর নাম রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেলকে জানাতে নির্দেশ দিয়েছিল আদালত। এদিন গোপাদেবীর নাম জানান তিনি। সেই নাম পেয়ে আদালত দুই সদস্যের কমিটি গঠনের নির্দেশ দেয়। প্রসঙ্গত, গত ২১ জুলাই বেসরকারি স্কুলের ফি মকুবের এই আবেদন খারিজ করে দিয়েছিল কলকাতা হাইকোর্ট। বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় ও বিচারপতি মৌসুমি ভট্টাচার্যের ডিভিশন বেঞ্চ ফি মকুবের পরিবর্তে অভিভাবকদের গত ১৫ আগস্টের মধ্যে অন্তত ৮০ শতাংশ ফি মিটিয়ে দিতে নির্দেশ দেয়। তবে ফি মেটাতে না পারার জন্য ছাত্রদের অনলাইন পরীক্ষা বা ক্লাস থেকে বঞ্চিত করা যাবে না বলেও জানিয়ে দেয় আদালত। প্রায় ১১২টি স্কুলের বিরুদ্ধে এই মামলা দায়ের হয়। স্কুলগুলির দাবি, এই ফি দিয়ে স্কুলের রক্ষণাবেক্ষণ ও শিক্ষকদের বেতন মেটানো হয়। বেসরকারি স্কুলগুলির বিরুদ্ধে মাত্রাছাড়া ফি নেওয়ার অভিযোগ তুলে বিভিন্ন স্কুলের সামনে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন অভিভাবকরা। এই স্কুলগুলির অভিভাবকদের নিয়ে একটি ফোরামও তৈরি হয়েছে। ফোরামের পক্ষ থেকে নানা বিক্ষোভ কর্মসূচিও নেওয়া হচ্ছে। এই অবস্থায় কমিটি কী রিপোর্ট দেয়, তার দিকেই তাকিয়ে আছেন অভিভাবকরা। 

জনপ্রিয়

Back To Top