সংবাদ সংস্থা,দিল্লি: হাঁটু প্রতিস্থাপনের খরচসীমা বেঁধে দিল কেন্দ্রীয় সরকার। মোদি সরকারের এই সিদ্ধান্তে প্রতি বছর দেড় লাখ রোগী লাভবান হবেন। তাঁদের বার্ষিক ১,৫০০ কোটি টাকার সাশ্রয় হবে। হাঁটু প্রতিস্থাপনের বিপুল খরচ। সামাল দিতে হিমশিম খেতে হয় রোগীর পরিবারকে। জানার পর প্রধানমন্ত্রী হাঁটু প্রতিস্থাপনের চিকিৎসার খরচ কমানোর আশ্বাস দিয়েছিলেন। তাঁর ঘোষণার পর ২৪ ঘণ্টাও কাটেনি। সরকারিভাবে খরচ নিয়ন্ত্রণের কথা জানানো হয়েছে। এ সম্পর্কে রাসায়নিক এবং সারমন্ত্রী অনন্ত কুমার বলেছেন,‘‌হাঁটু প্রতিস্থাপন চিকিৎসা করাতে গিয়ে হয়রান হতে হচ্ছে রোগীদের। অনৈতিকভাবে তাঁদের ঘাড়ে বিপুল খরচের বোঝা চাপিয়ে দেওয়া হচ্ছে। এ সব দেখে সরকার চুপ করে থাকতে পারে না। রোগীদের স্বস্তি দিতেই এই সিদ্ধান্ত।’‌ তিনি আরও বলেছেন, কোনও হাসপাতাল বা চিকিৎসার সঙ্গে যুক্ত কেউ সরকারি নির্দেশ অমান্য করলে তাঁর বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ করা হবে।
 হাঁটু প্রতিস্থাপনের চিকিৎসায় ভারতে ক্রোমিয়াম আর কোবাল্টের তৈরি হাঁটু সবচেয়ে বেশি ব্যবহার করা হয়। খরচ পড়ে ১ লাখ ৫৮ হাজার টাকা থেকে ২ লাখ ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত। কিন্তু সরকারি ঘোষণায় এক ধাক্কায় সেই খরচ এখন কমে ৫৪,৭২০ টাকা হয়েছে। অন্য ধরনের পদ্ধতিতে হাঁটু প্রতিস্থাপনের খরচ ২ লাখ ৫০ হাজার টাকা থেকে ৪ লাখ টাকা। সরকারি সিদ্ধান্তে সেই খরচ কমে হয়েছে ৭৬,৬০০ টাকা। হাই ফ্লেক্সিবিলিটি অস্ত্রোপচারের খরচ ১ লাখ থেকে কমিয়ে ৫৬,৪৯০ করা হয়েছে। হাঁটু প্রতিস্থাপনের আরও এক ধরনের চিকিৎসায় রয়েছে। তার খরচ ২,৭৫,০০০ থেকে কমিয়ে ১,১৩,৯৫০ টাকা করা হয়েছে। বিশেষ এক ধরনের পদ্ধতিতে হাঁটু প্রতিস্থাপনে খরচ হত ৪–৯ লাখ টাকা। এখন তা কমে হয়েছে ১,১৩,৯৫০ টাকা।‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top