‌আজকালের প্রতিবেদন: ডায়াবেটিসের জন্য অধিকাংশ রোগীর কিডনি ফেলিওর হয়। কিন্তু ডায়াবেটিস ধরা পড়া মাত্রই নিয়ন্ত্রণে রাখলে অনেকটাই কিডনি খারাপের হাত থেকে রক্ষা পাওয়া সম্ভব। কিডনির সমস্যায় ভোগা রোগীরা কী করে ভাল থাকবেন, কী ধরনের খাবার খেলে সুস্থভাবে বাঁচবেন, কখন কিডনি প্রতিস্থাপনের প্রয়োজন প্রভৃতি বিষয় নিয়ে রবিবার রোটারি সদনে দিনভর সচেতনতামূলক অনুষ্ঠান ও কর্মশালার আয়োজন করে ‘‌দি কিডনি কেয়ার সোসাইটি’। দেশ–বিদেশের বিশেষজ্ঞ ছাড়াও প্রায় ৫০০–‌র মতো রোগী ও তাঁদের পরিজনেরা শামিল হন। সোসাইটির সভাপতি বিশিষ্ট নেফ্রোলজিস্ট ডাঃ প্রতিম সেনগুপ্ত বলেন,‘‌ডায়াবেটিসের ফলে কিডনি রোগ অর্থাৎ ডায়াবেটিক নেফ্রোপ্যাথি এখন মহামারীর আকার নিচ্ছে। ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখলে এবং কিডনির সমস্যা প্রাথমিক অবস্থায় নির্ণয় হলে আধুনিক চিকিৎসায় সুস্থ থাকা সম্ভব। কিডনি রোগ, অ্যাডভান্স প্যাংক্রিয়াটাইটিস নিয়েও দৈনন্দিন জীবনে কীভাবে ভালভাবে বাঁচা যায় তা নিয়েই এদিনের সচেতনতামূলক কর্মশালা।’‌ যোগা মেডিটেশনের মাধ্যমে কিডনি রোগীর ভাল থাকা, শুগার, রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ, ডায়াবেটিক ফুড, রেটিনোপ্যাথি, নেফ্রোপ্যাথি প্রভৃতি বিষয়ে আলোচনা করেন শুভব্রত ভট্টাচার্য, ডাঃ সুনীল কুমার, ডাঃ রূপককান্তি বিশ্বাস, ডাঃ অর্নিবাণ মজুমদার, ডাঃ ভি এস রাঠোর প্রমুখ। এদিনের অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন বিশিষ্ট নাট্যব্যক্তিত্ব দেবশঙ্কর হালদার, সঙ্গীত পরিচালক ইন্দ্রদীপ দাশগুপ্ত, প্রাক্তন ক্রিকেটার সম্বরণ ব্যানার্জি, চিকিৎসক সাধনচন্দ্র রায়, দেবব্রত বসু, আর কে বিশ্বাস প্রমুখ।

জনপ্রিয়

Back To Top