আজকালের প্রতিবেদন: প্রাথমিক থেকে মাধ্যমিকের সিলেবাসে পাঠ্য হিসেবে আগেই এসেছে কন্যাশ্রী প্রকল্প। এবার উচ্চমাধ্যমিকের বিভিন্ন বিষয়ের প্রজেক্টে অন্যতম বিষয় হিসেবে যুক্ত হল কন্যাশ্রী প্রকল্প। বুধবার এই মর্মে বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ।
কন্যাশ্রী মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির স্বপ্নের প্রকল্প। এই প্রকল্পের আওতায় এখন আর শুধু স্কুল এবং কলেজের ছাত্রীরাই নেই, বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীরাও অন্তর্ভুক্ত হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রীর হাত ধরেই বিশ্বজয় করেছে এই প্রকল্প। আন্তর্জাতিক সম্মান পেয়েছে কন্যাশ্রী। তারপরই প্রাথমিক থেকে মাধ্যমিকের পাঠ্যক্রমে পাঠ্য হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে কন্যাশ্রীর এই বিশ্বজয়ের কাহিনী। উচ্চমাধ্যমিকের সিলেবাসেও এই প্রকল্পকে অন্তর্ভুক্ত করার ব্যাপারে সিলেবাস কমিটির সঙ্গে সংসদের আলোচনা হয়। ঠিক হয়, প্রজেক্টের অন্যতম বিষয় হিসেবে কন্যাশ্রীকে আনা হবে। সেইমতো এদিন নির্দেশিকা জারি করেছে সংসদ। তাতে বলা হয়েছে, দ্বাদশ শ্রেণিতে স্বাস্থ্য ও শারীরশিক্ষা, বাংলা,  অর্থনীতি, জার্নালিজম এবং মাস কমিউনিকেশন, রাষ্ট্রবিজ্ঞান, শিক্ষা ও সমাজবিজ্ঞান— এই বিষয়গুলির পড়ুয়ারা ২০ নম্বরের প্রজেক্ট হিসেবে কন্যাশ্রী প্রকল্প নিতে পারে। প্রজেক্টে কী করতে হবে তার ১০টি বিষয়ও দেওয়া হয়েছে। তার মধ্যে রয়েছে কন্যাশ্রীদের আত্মরক্ষমূলক প্রকল্প কীভাবে ছাত্রীদের আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে তুলেছে, দীর্ঘমেয়াদি প্রভাব বিষয়ে প্রতিবেদন, উচ্চমাধ্যমিক স্তরের ছাত্রীদের ব্যক্তিত্ব গঠনে কন্যাশ্রীর ভূমিকা, ‘‌কন্যাশ্রী এখন বিশ্বশ্রী’‌— তুমি কীভাবে তাতে শামিল হতে চাও এবং অন্যদের উদ্বুদ্ধ করতে চাও, নারীদের ক্ষমতায়নে কন্যাশ্রীর গুরুত্ব, কন্যাশ্রীর কারণে বাল্যবিবাহ সম্পর্কে কীভাবে সচেতনতা গড়ে উঠেছে ইত্যাদির ওপর প্রতিবেদন।‌

জনপ্রিয়

Back To Top