আজকালের প্রতিবেদন: যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়নের অধ্যাপক দেবজ্যোতি ঘোষাল বললেন, ‘‌আমাদের রাজ্যে স্যানিটাইজার টানেলে মূলত দুটি রাসায়নিক ব্যবহার করা হয়। ১)‌‌ সোডিয়াম হাইপোক্লোরাইড, ২)‌‌ হাইড্রোজেন পারঅক্সাইড। আরেকটি রাসায়নিক হল পার–‌অ্যাসিটিক অ্যাসিড। এটি তুলনায় দামি, ভিনিগারের জোরালো ভার্সান। কোভিড–সময়ে এই রাসায়নিকটি ইওরোপে ব্যবহৃত হয়েছে। এটিও ক্ষতিকর। আমাদের রাজ্য বা দেশে টানেলে ব্যবহার করা হয় প্রথম দুটি রাসায়নিক। দ্বিতীয় রাসায়নিকটির ক্ষতির মাত্রা তুলনায় কম। সোডিয়াম হাইপোক্লোরাইড বেশ ক্ষতিকর। টানেলে যখন ঢুকছি, তখন নাক–‌মুখ বন্ধ হচ্ছে না। রাসায়নিকটি আমাদের শ্লেষ্মা–‌ঝিল্লির রীতিমতো ক্ষতি করে। শরীরের ভেতরের ভাল কোষ বা সেলগুলি এর প্রভাবে মারা যায়। আমাদের ত্বকের কোষের একটা রক্ষাকবচ বা ‘‌প্রোটেকশন’‌ থাকে, কিন্তু ভেতরের কোষের তা থাকে না। কোষ মারা গেলে, নষ্ট বা ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে পড়ে। ক্যান্সারের সম্ভাবনা তৈরি হয়। স্বরযন্ত্র খারাপ হতে পারে। কোনও কিছু গন্ধ পাওয়ার অনুভূতি চলে যেতে পারে।

জনপ্রিয়

Back To Top