সাগরিকা দত্তচৌধুরি: পরিমিত খাওয়াদাওয়া, জলপান, ঘুম ছাড়া শরীরচর্চার দিকেও নজর রাখতে হবে। নির্বাচন সামনে। এখন কারোর হাতেই বেশি সময় নেই। প্রখর রোদের মধ্যেই প্রচার সারতে হচ্ছে দলীয় প্রার্থীদের। অন্যদিকে, স্ট্রেশের মধ্যেও কাটাতে হচ্ছে। প্রার্থীদের অনেক সময় ঘুমোতেও রাত হচ্ছে। আবার ভোরবেলায় উঠে প্রচারের জন্য বেরোচ্ছেন। এই অবস্থায় শরীরে এনার্জি ধরে রাখতে এবং ‌ নিজেকে স্ট্রেশ–‌মুক্ত রাখতে সকালে ঘুম থেকে উঠে দু–একটি প্রাণায়ম ও যোগা সেরে নিলে ভাল হয়।  দলীয় প্রার্থীদের উদ্দেশ্যে এমনটাই পরামর্শ দিচ্ছেন যোগ স্পেশ্যালিস্ট এবং ফিটনেস এক্সপার্টরা। 
পশ্চিমবঙ্গ যোগা ও ন্যাচারোপ্যাথি কাউন্সিলের সভাপতি তুষার শীল বলেন,‘‌আলাদা করে শরীরচর্চার সময় নেই। প্রচারে বেরোনোর আগে চেয়ারে বা বিছানায় বসে অথবা দাঁড়িয়ে লম্বা লম্বা ৫০টি শ্বাস নিয়ে মুখ দিয়ে ছাড়লে শরীরের জন্য ভাল। এর মধ্যে ২৫টা শ্বাস নেওয়ার সময় পেট ফোলানো ও শ্বাস ছাড়ার সময় পেট ভিতরে ঢোকানো। তলপেট টান করে বাকি ২৫টা শ্বাস নিতে নিতে বুক ফোলানো ও শ্বাস ছাড়ার সময় বুক স্বাভাবিক অবস্থায় আনা। এগুলি করলে শরীরে অনেকটাই অক্সিজেন বাড়বে, কার্বন ডাই অক্সাইডের পরিমাণ কমবে। কাজ করার সময় শরীরে এনার্জি আসবে। হাঁটার সময় চারটে স্টেপ দম নিতে নিতে এবং পরের চারটে স্টেপ দম ছাড়তে ছাড়তে প্রাণায়ম মেনে যতটুকু সম্ভব হাঁটলে ভাল। তবে জোর করে বেশিক্ষণ হাঁটবেন না।’‌
আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন ফিটনেস বিশারদ গুরুপ্রসাদ ব্যানার্জি জানান, এখন নিয়মিত জিম করে আবার দলীয় কাজকর্ম করার ধকল শরীর নিতে পারবে না। তবে এখন আলাদা করে হাঁটার প্রয়োজন নেই। কারণ, বহু প্রার্থী অনেকটা পথ হেঁটেই প্রচার সারছেন। হাঁটা আলাদাই একটা এক্সারসাইজ। এর কোনও বিকল্প নেই। তবে অনেকক্ষণ হাঁটার দরুণ পেশিতে ব্যথা হয়ে টান ধরে। গা–হাত–পা–ঘাড়–মাথা, কাঁধ ব্যথা হয়ে যায়। সেক্ষেত্রে পেশিতে রক্ত সরবরাহ সচল রাখতে কয়েকটি সহজ ফ্রি হ্যান্ড স্ট্রেচিং এক্সারসাইজ এবং সঙ্গে কিছু যোগা ও প্রাণায়ম করতে পারলে ভাল। কাঁধ, ঘাড় ব্যথা হলে শ্বাস নিয়ে ঘাড় পিছনে ও সামনে আনা নেওয়া করা, গলা বাঁদিকে–ডানদিকে ঘোরানো, ঘড়ির কাঁটার দিকে ও বিপরীত বরাবর কাঁধ ঘোরানো প্রভৃতি করা যেতে পারে।ওয়ার্ল্ড যোগ সোসাইটির প্রতিষ্ঠাতা ও অধ্যক্ষ যোগাচার্য ডাঃ দিব্যসুন্দর দাস জানিয়েছেন, ‘‌‌চটজলদি হাতেগোনা  দু–একটা ব্যায়াম করলেই হবে। চেয়ারে বসে আস্তে আস্তে শ্বাস নিয়ে দু হাত ওপরে ওঠানো–‌নামানো— এভাবে পাঁচ বার করুন। স্ট্রেশমুক্ত হতে দুটি কান তর্জনী দিয়ে বন্ধ করে পাঁচবার ওঁ ধ্বনি করে জোরে শ্বাস টেনে আস্তে আস্তে ছাড়া, চোখ বুজে কিছুক্ষণ ধ্যান করা, অনুলোম–বিলোম অর্থাৎ ডান নাক বন্ধ রেখে বাঁ নাক দিয়ে শ্বাস ছাড়া আবার বাঁ নাক বন্ধ করে ডান নাক দিয়ে শ্বাস ছাড়া প্রভৃতি করলে শরীরে এনার্জি আসবে।’

সুস্থ থাকার পরামর্শ: 

  1. হাঁটু, পা ব্যথা হলে চেয়ারে বসে দুটো পা একসঙ্গে এবং আলাদা করে টান করে সোজা রাখুন। ৫ সেকেন্ড করে ১০ বার করুন।
  2. গোড়ালি ব্যথা হলে দেওয়াল ধরে আঙুলে ভর দিয়ে দাঁড়িয়ে গোড়ালি ওঠানো–নামানো।
  3. চেয়ারে বসে দুটো পা জুড়ে সোজা রেখে ১০ বার পায়ের পাতা ও গোড়ালি ওপর–নীচ করা এবং ঘোরানো
  4. কোমর ব্যথা করলে কোমর পিছনে বাঁকিয়ে সামনে ঝুঁকতে হবে।
  5. প্রচার করতে করতে কোমর ব্যথা হলে চটজলদি আরাম পেতে দাঁড়ানো অবস্থায় শ্বাস নিয়ে দুটো হাত পিছন দিকে একসঙ্গে নিয়ে কোমরের মাঝে হাতের তালু দিয়ে সাপোর্ট রেখে শিরদাঁড়া যতটা সম্ভব আর্চ হয়ে অন্তত ১০ সেকেন্ড রেখে আবার শ্বাস ছাড়তে হবে।
  6. ছোট টুল বা চেয়ারে বসে গোড়ালি মেঝের সঙ্গে সাপোর্ট রেখে দুটো পা একসঙ্গে টানটান করে ৫ সেকেন্ড রাখতে হবে।
  7. হাঁটু–কোমরে–পায়ে ব্যথা হলে দণ্ডায়মান ভুজঙ্গাসন, বজ্রাসন, ভুজঙ্গাসন, অর্ধশলভাসন, গ্যাস অম্বল হলে পবনমুক্তাসন করা যেতে পারে।
  8. চাপমুক্ত হতে কপালভাতি, অনুলোম–বিলোম, ভ্রষ্টিকা প্রভৃতি কিছু প্রাণায়ম করতে হবে।
  9. জোর করে বেশিক্ষণ হাঁটবেন না। একটানা বেশিক্ষণ না হেঁটে কিছুটা বিশ্রাম করুন।
  10. দিনভর প্রচারের পর অতিরিক্ত শরীরচর্চা করবেন না। এতে ক্লান্তিভাব আসবে। 
  11. শরীরচর্চার সঙ্গে শরীরে জলের পরিমাণ বজায় রাখার পাশাপাশি প্রয়োজন প্রচুর ফল ও হালকা সহজপাচ্য খাবার। ‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top