গৌতম চক্রবর্তী: বারাসতকে টেক্কা দিল বারুইপুর। প্রতিযোগী দলের সংখ্যায় এবং ছাত্রীদের অংশগ্রহণ ও উৎসাহে আপ্লুত তৃণমূলের ডিজিটাল চ্যালেঞ্জ‌ প্রতিযোগিতার কুইজ মাস্টার তথা সাংসদ ডেরেক ও’‌ব্রায়েন। আপ্লুত তাঁর দুই সহযোগী কর্নেল দীপ্তাংশু চৌধুরি ও সুপর্ণ মৈত্র। সরকারি প্রকল্প, সাইবার জগৎ এবং সাম্প্রতিক ঘটনা নিয়ে প্রতিযোগীদের প্রশ্নোত্তরপর্ব মাতিয়ে রেখেছিল এদিনের বারুইপুর রবীন্দ্র ভবনকে।
শুক্রবার বারাসত রবীন্দ্র ভবনে উত্তর ২৪ পরগনার প্রতিযোগীদের নিয়ে শুরু হয় ডিজিটাল চ্যালেঞ্জ কুইজ প্রতিযোগিতা। শনিবার হল বারুইপুরের রবীন্দ্র ভবনে। এখানেও অনুষ্ঠানের মূলপর্বের পরিচালনা করলেন ডেরেক ও’‌ব্রায়ন। শুক্রবার বারাসতে অনুষ্ঠানের মূলপর্বে কোনও মহিলা অংশগ্রহণকারী ছিল না। কিন্তু বারুইপুরে মূলপর্বে ১২ জনের মধ্যে ৫ জন ছাত্রীকে অংশ নিতে দেখা যায়। ছাত্রীদের এই অংশগ্রহণের কথা তুলে ধরে সাংসদ ডেরেক ও’‌ব্রায়েন বলেন, ‘‌এখানকার কুইজে ছাত্রদের সঙ্গে ছাত্রীদের অংশগ্রহণ দেখে ভাল লাগছে। ওদের উৎসাহ আমাদেরও উৎসাহিত করছে।’‌ অনুষ্ঠানে ছিলেন বিধায়ক নির্মল মণ্ডল, বিশ্বনাথ দাস, সওকত মোল্লা, বারুইপুর ও রাজপুর–সোনারপুর পুরসভার চেয়ারম্যান শক্তি রায়চৌধুরি ও পল্লব দাস, জেলা পরিষদের সভাধিপতি শামিমা শেখ প্রমুখ। দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার সাগর থেকে সুন্দরবন— সব জায়গা থেকেই এই কুইজে কলেজ ও স্কুলের ছাত্রছাত্রীরা অংশ নেয়। প্রায় ২৫০টি দল প্রথম পর্বের অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছিল। ৬টি দলকে বেছে নেওয়া হয় মূলপর্বে। সুভাষগ্রামের সুরেন্দ্রনাথ ল কলেজের দেবাঞ্জন ও মধুমিতা প্রথম স্থান পান। তাঁদের দিল্লির সংসদ ভবনে নিয়ে গিয়ে লোকসভা ও রাজ্যসভার অধিবেশন দেখানো হবে। ডায়মন্ড হারবারের ফকিরচাঁদ কলেজের অংশগ্রহণকারীরা দ্বিতীয় ও বঙ্কিম সর্দার কলেজের অংশগ্রহণকারীরা তৃতীয় স্থান পায়। তাঁদের বিধানসভা সফরে নিয়ে যাওয়া হবে।

 

মূলপর্বের সঞ্চালনায় কুইজ মাস্টার, সাংসদ ডেরেক ও’‌ব্রায়েন। বারুইপুর রবীন্দ্র ভবনে। ছবি:‌ প্রতিবেদক‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top