আজকালের প্রতিবেদন- চাপা থাকা হাইপারটেনশন বাড়াচ্ছে মৃত্যুহার। ওষুধের দোকানে গিয়ে কখনই রক্তচাপ মাপানো উচিত নয়। কারণ, ঠিক পদ্ধতি মেনে সেখানে রক্তচাপ মাপা হয় না। চা, কফি, ধূমপান করার পর রক্তচাপ মাপালে ফলাফল ঠিকমতো পাওয়া যাবে না বলে জানান বিশেষজ্ঞরা। খুব ভোরে ৪টে থেকে বেলা ১০টার মধ্যে হঠাৎ রক্তচাপ বেড়ে হার্ট অ্যাটাক, ব্রেনস্ট্রোক ঘটায়। কোনও কাজ না করলে, বিকেলের দিকেও অনেক সময় রক্তচাপ বেশি থাকে। এক্ষেত্রে কোন সময়ে কতটা ডোজে রক্তচাপ কমানোর ওষুধ খেতে হবে, তা ঠিক করা গুরুত্বপূর্ণ।  
চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, চাপা থাকা কিংবা মাক্সড হাইপারটেনশন হল এমন একটা অবস্থা, ডাক্তারের চেম্বারে রক্তচাপ স্বাভাবিক কিন্তু বাড়িতে মাপার সময় বেশি দেখাচ্ছে। এর ফলে উচ্চ রক্তচাপ আড়ালে থেকে যায়। ফলে কোনও পরীক্ষাই হল না, ওষুধও খেলেন না। এ ধরনের রোগীদের সব সময়ই হার্ট, কিডনি, ব্রেনস্ট্রোক হওয়ার ঝুঁকি সবসময়ই থাকে। আবার হোয়াইট কোট হাইপারটেনশন হল, ডাক্তারের ক্লিনিকে গিয়ে রক্তচাপ মাপা হল, দেখা গেল স্বাভাবিকের থেকে বেশি। অথচ বাড়িতে বা অফিসে রক্তচাপ স্বাভাবিক থাকছে। ভুল চিহ্নিত হওয়ায় অকারণে রক্তচাপ কমানোর ওষুধ খাওয়ায় বাড়ছে সমস্যা। যাঁরা রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণের ওষুধ খাচ্ছেন না, তাঁদের ওপর এরিস লাইফসায়েন্সেসের উদ্যোগে করা সমীক্ষায় দেখা গেছে, রাজ্যের ২২.৫০ শতাংশের রক্তচাপ বেড়ে যায় যখন কোনও চিকিৎসক পরীক্ষা করেন। আবার ১৭.৩০ শতাংশের হাইপারটেনশন লুকোনো থাকে। এ রাজ্যের ৮৬২ জনকে নিয়ে এই সমীক্ষায় পুরুষ ৬২২ ও মহিলা ২৪০ জন। 
সোমবার কলকাতায় সাংবাদিক বৈঠকে সমীক্ষার কো–অর্ডিনেটর কার্ডিওলজিস্ট সৌমিত্র কুমার বলেন, ‘হৃদরোগের ঝুঁকি কমাতে নিয়মিত রক্তচাপ পরীক্ষা করানো, ধূমপান, মদ্যপান বর্জন, শরীরচর্চা করা প্রয়োজন।‌ ডাক্তারের ক্লিনিকে যাওয়ার পর পাঁচ মিনিট বিশ্রাম নিয়ে হেলানো চেয়ারে বসে হাতের বাহু সোজা করে রেখে রক্তচাপ নির্ণয় করা উপযুক্ত পদ্ধতি।’ এরিস লাইফসায়েন্সেসের সভাপতি ডাঃ বিরাজ সুবর্ণ বলেন, ‘‌নিয়মিত চেকআপের মধ্যে থাকেন না বলে অনেকে বুঝতে পারেন না তাঁরা রক্তচাপের সমস্যায় ভুগছেন। ৩৫ বছরের পর থেকে নিয়মিত নজরদারি প্রয়োজন। নেফ্রোলজিস্ট ডাঃ ললিতকুমার আগরওয়াল বলেন, ‘হাইপারটেনশনের ফলে হঠাৎ করেই কিডনি নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা থাকে। রক্তচাপ কমলে কিডনির সমস্যাও কমবে।’‌‌‌

রক্তচাপ নিয়ে আলোচনাসভায় ডাঃ সৌমিত্র কুমার। আছেন ডাঃ বিরাজ সুবর্ণ ও ডাঃ ললিতকুমার আগরওয়াল। সোমবার। ছবি: দীপক গুপ্ত

জনপ্রিয়

Back To Top