আজকালের প্রতিবেদন: বিভিন্ন ধরনের রেটিনাল ডিজিজের মধ্যে বয়স সম্পর্কিত অর্থাৎ এজ রিলেটেড ম্যাকুলার ডিজেনারেশন (‌এএমডি)‌ এবং ডায়াবেটিক ম্যাকুলার এডিমা (‌ডিএমই)‌ দুটি প্রধান কারণ যার ফলে অন্ধত্বের সৃষ্টি হয়।  দ্রুত রোগনির্ণয় হলে সারিয়ে তোলা সম্ভব। সম্প্রতি কলকাতা প্রেস ক্লাবে সাংবাদিক–বৈঠকে এ কথা জানান চক্ষু শল্য চিকিৎসক সিদ্ধার্থ ঘোষ। এ ধরনের রোগ হলে স্বাভাবিক জীবন–যাপন ব্যাহত হয়। সিদ্ধার্থ জানান, চোখের কর্নিয়ার সামনের অংশ সম্পর্কে জানা গেলেও, পিছনের অংশ সম্পর্কে সহজে অবগত করা যায় না। মানুষের চোখ নয়, মস্তিষ্ক মূলত দেখে। অক্ষিগোলকের মাধ্যমে তৈরি ছবি মস্তিষ্কে যায়। রেটিনায় কোনও রোগ হলে অক্ষিগোলকের দ্বারা সেই সঙ্কেত মস্তিষ্কে না পৌঁছনোয় দেখতে সমস্যা হয়। এএমডি রোগ হলে চোখের ম্যাকুলা অর্থাৎ রেটিনার একটি অংশ যা কেন্দ্রীয়ভাবে দৃষ্টিশক্তি নিয়ন্ত্রণ করে তার অবনতি ধীরে ধীরে হতে থাকে। সাধারণত ৫০ বছরের পর থেকে এই সমস্যা দেখা দেয়। যাঁদের হয় তাঁদের দৃষ্টিশক্তি মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ডিএমই রোগে রেটিনায় সূক্ষ্ণ রক্ত সংবহন নালিগুলো ছিদ্র হয়ে রক্ত বেরিয়ে গিয়ে রেটিনার জায়গা ফুলে ওঠে, দৃষ্টিশক্তি নষ্ট হয়। বর্তমানে ডায়াবেটিক রোগীদের এটি খুব বাড়ছে। ঝাপসা বা বিকৃত দৃষ্টি, রং না বোঝা, দৃষ্টিতে কালো স্পট তৈরি, সরলরেখাকে বাঁকা দেখা প্রভৃতি রেটিনাল ডিজিজের উপসর্গ হলে অবিলম্বে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।                   

ছবি: প্রতীকী   ‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top