আজকালের প্রতিবেদন: সাজ সাজ রব এখন নেতাজি ইনডোর স্টেডিয়াম আর নন্দন ঘিরে। এখন বাঙালির প্রাণের পার্বণে পরিণত হয়েছে কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব। এবার এই উৎসবের রজতজয়ন্তী বছর। ২৫তম কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের সূচনা করবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি, আজ নেতাজি ইনডোর স্টেডিয়ামে। রজতজয়ন্তী বর্ষের এই সিনেমা উৎসব ঘিরে সাধারণ মানুষের মনে উৎসাহ উদ্দীপনার অন্ত নেই। কে কে আসবেন এই উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে? থাকছেন বাংলার ব্র‌্যান্ড অ্যাম্বাসাডর শাহরুখ খান। আসছেন রাখী গুলজার ও তাঁর কন্যা চলচ্চিত্র পরিচালক মেঘনা গুলজার। থাকবেন জার্মানির বিশিষ্ট পরিচালক ফল্‌কার শ্লোয়েনডর্ফ ও পরিচালক অ্যান্ডি ম্যাকডোয়েল। আর সমাপ্তি অনুষ্ঠানে থাকবেন শাবানা আজমি। উল্লেখ্য, এই চলচ্চিত্র উৎসবেই ১৪ নভেম্বর, বৃহস্পতিবার নন্দন ১-‌এ থাকবে তাঁর বাবা কাইফি আজমিকে নিয়ে সুমন্ত্র ঘোষালের তথ্যচিত্র ‘‌কাইফিনামা’‌। এছাড়াও সত্যজিৎ রায় স্মারক বক্তৃতা দেবেন কুমার সাহানি। অনুষ্ঠানের থালি গার্ল হবেন শ্রাবন্তী।
এর মধ্যেই নতুন সাজে সেজে উঠেছে নেতাজি ইনডোর স্টেডিয়াম ও নন্দন চত্বর। নন্দন চত্বরকে ঢেলে সাজানো হল। নন্দনের একতলা আর দোতলার সজ্জা এখন যে কোনও ফাইভস্টার হোটেলের অন্দরসজ্জাকেও টেক্কা দেবে। ধীরে ধীরে গোটা নন্দন চত্বরকেই ঢেলে সাজানোর পরিকল্পনা আছে রাজ্য সরকারের। 
তবে এই চলচ্চিত্র উৎসবের বিশেষ আকর্ষণ এই ডিজিটাল যুগে হারিয়ে যাওয়া ৩৫ মিমি প্রোজেক্টরের সাহায্যে বেশ কয়েকটি পুরনো ছবির প্রদর্শন। আর এবারই প্রথমবার কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে থাকছে ‘‌থ্রিডি’ ছবির প্রদর্শন।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে নেতাজি ইনডোর স্টেডিয়ামে থাকছে সত্যজিৎ রায়ের ‘‌গুপী গাইন বাঘা বাইন’‌। ১৯৬৯-‌এর ৮ মে মুক্তি পায় এই ছবি। সেই হিসেবে এবছর এই ছবির সুবর্ণজয়ন্তী। তবে তার আগে এই ছবি সম্পূর্ণভাবে সংরক্ষণ‌ করা হয়েছে তথ্য ও সংস্কৃতি দপ্তর ও নন্দনের উদ্যোগে। এই প্রথম দেশীয় প্রযুক্তিতে কোনও ছবি সংরক্ষণ হল। সংরক্ষণের কাজ হয়েছে প্রসাদ ফিল্ম ল্যাবরেটরিতে। প্রয়োজনীয় অর্থ ব্যয় করেছে রাজ্য সরকার। 
এছাড়াও থাকছে চলচ্চিত্র শতবর্ষ ভবনে রবি ঘোষের ‘‌গল্প হলেও সত্যি’, জহর রায়ের ‘‌ভানু গোয়েন্দা জহর অ্যাসিসট্যান্ট’, ভানু বন্দ্যোপাধ্যায়ের ‘‌যমালয়ে জীবন্ত মানুষ’‌, ঋত্বিক ঘটকের ‘‌মেঘে ঢাকা তারা’, করুণা বন্দ্যোপাধ্যায়ের‌‌‌ ‘‌অপরাজিত’‌, বাসু চ্যাটার্জির ‘‌সারা আকাশ’‌, তুলসী চক্রবর্তী ও মলিনাদেবীর ‘‌সাড়ে চুয়াত্তর’‌, মৃণাল সেনের ‘‌ভুবন সোম’‌ আর রবীন্দ্র-‌ওকাকুরা ভবনে অনুপকুমারের ‘‌বিবাহ বিভ্রাট’‌, অরবিন্দ মুখোপাধ্যায় পরিচালিত ‘‌অগ্নীশ্বর’‌, চিন্ময় রায়ের ‘‌চারমূর্তি’‌, আর মান্না দে–‌‌র গান ও উত্তমকুমারের অভিনয়ে উজ্জ্বল ‘‌অ্যান্টনি ফিরিঙ্গি’‌, ও সদ্য প্রয়াত অভিনেতা স্বরূপ দত্তর ‘‌আপনজন’‌। একসঙ্গে এত বাংলা ছবি আর কখনও কলকাতা চলচ্চিত্র উৎসবে দেখানো হয়নি। বলা যায়, বিশ্বের দরবারে বাংলা ছবিকে পৌঁছে দিচ্ছে এবারের ২৫তম কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব। এবারের উৎসবে ১৭টি প্রেক্ষাগৃহে দেখানো হবে ৭৬ দেশের ৩৬৭টি ছবি।‌‌‌‌

প্রস্তুতি দেখতে নন্দনে মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস ও উৎসব কমিটির চেয়ারম্যান রাজ চক্রবর্তী। ছবি: সুপ্রিয় নাগ

জনপ্রিয়

Back To Top