আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ এতদিন সাধারণ মানুষ সরব হয়েছিলেন। এবার সেই তালিকায় যোগ দিলেন বলিউডের তারকারাও। তাপসী পান্নু, বীর দাস, রেণুকা সাহানি, নেহা ধুপিয়া, ডিনো মোরে সোশ্যাল সাইটে উগরে দিলেন ক্ষোভ। তাঁদেরও প্রশ্ন একটাই, লকডাউনের মাসগুলোয় বিদ্যুৎ বিল এতটা বাড়ল কীভাবে?‌
তাপসীর কথায়, মাসে তিন থেকে চার হাজার টাকা বিদ্যুতের বিল আসত তাঁর। লকডাউনের শেষের দিকে বিলে লাফিয়ে বেড়েছে টাকার অঙ্ক। ৩৬ হাজার টাকা পর্যন্ত বিল এসেছে। টুইটারে লিখলেন, ‘তিন মাসের লকডাউন। আমি ভাবছি শেষ মাসে এমন কী বৈদ্যুতিক যন্ত্র কিনলাম বা ব্যবহার করলাম, যাতে বিদ্যুতের বিলে এতটা লাফ?‌’‌ আর একটি টুইটে তাপসী লিখলেন, তাঁর আর একটি ফ্ল্যাটে বিদ্যুতের বিল এসেছে ৮,৬৪০ টাকা। অথচ সেই ফ্ল্যাটে কেউ থাকেই না। সপ্তাহে একদিন ঝাড়পোছের জন্য ফ্ল্যাট খোলা হয়। যের পর ‘‌থাপ্পড়’‌ অভিনেতার খোঁচা, ‘‌ভয় লাগছে, হয়তো আমাদের অগোচরে কেউ সেই ফ্ল্যাটে থাকতে শুরু করেছেন। আর আপনারা সেই সত্যিটাই জানিয়ে দিলেন।’‌ 

তাপসীর পোস্টের কমেন্টে অভিনেতা পুলকিত সম্রাটও একই অভিযোগ তুললেন। তাঁর শেষ মাসে বিল এসেছে ৩০ হাজার টাকা। রেণুকা সাহানির বাড়িতে মে মাসে বিদ্যুতের বিল এসেছিল ৫,৫১০ টাকা। মে–জুন মিলে তা হয়েছে ২৯,৭০০ টাকা। পরিচালক বিজয় নাম্বিয়ারও একই অবস্থা। তিনি জানিয়েছেন, এই লকডাউনের ক’‌ মাসে নতুন কোনও বৈদ্যুতিক যন্ত্র কেনেননি। এসিও তেমন চালাননি। তাও বিদ্যুতের বিলে টাকার অঙ্ক বেড়েছে তিন গুণ। অভিনেতা আমায়রা আবার এপ্রিলের শুরু থেকেই বাবা–মায়ের ফ্ল্যাটে থাকছেন। তাও তাঁকে দ্বিগুণ বিল মেটাতে হচ্ছে। 

 

জনপ্রিয়

Back To Top