আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ অঙ্কিতার সঙ্গে সুশান্তের সম্পর্ক নিয়ে দিন কয়েক আগেই সোশাল সাইটে পোস্ট করেছিলেন সন্দীপ সিং। এককালে লোখণ্ডওয়ালার ফ্ল্যাটে সুশান্ত আর অঙ্কিতার সঙ্গে তিনিও থাকতেন। সেই দিনগুলো কতটা মিস করেন, লিখেছিলেন সেই কথা। 
সন্দীপ লিখেছিলেন। অঙ্কিতা হয়তো লিখতে পারেননি। কিন্তু তিনিও যে সেই দিনগুলোকে মিস করেন, সুশান্তকে মিস করেন, তার প্রমাণ সাম্প্রতিক অতীতে একটি পোস্ট। তখনও সুশান্তের মৃত্যু হয়নি। নিজের মায়ের সঙ্গে একটি ছবি পোস্ট করেছিলেন অঙ্কিতা। সেই প্রেক্ষাপটে দেওয়াল জুড়ে শুধুই সুশান্ত আর অঙ্কিতার ছবি। তার সামনে দাঁড়িয়ে ছবি তুলেছেন মা–মেয়ে। 
সেই ছবি যদিও খুব নতুন নয়। তবু একথা স্পষ্ট যে সম্পর্ক ভাঙার ছ’‌ বছর পরও সুশান্তকে ভুলতে পারেননি অঙ্কিতা। তাই দেওয়ালে সেই ছবি টাঙানোই রয়েছে। নিজের ভালবাসা গোপন করতেও আগ্রহী নন তিনি। সে কারণেই পুরনো ছবিটি অবলীলায় শেয়ার করেছেন। সুশান্ত ভক্তরা মেনে নিয়েছেন, অঙ্কিতার মতো কেউই হয়তো সুশান্তকে এত ভালবাসতে পারেননি। 
একটা সময় অভিনয় ছেড়ে দিয়েছিলেন অঙ্কিতা। বাড়িতেই থাকতেন। রেঁধেবেড়ে খাওয়াতেন সুশান্তকে। তার পর সম্পর্কে ভাঙন। যদিও সেই নিয়ে কোনওদিন মুখ খোলেননি তিনি। 
এদিকে সুশান্তের মৃত্যুকে আত্মহত্যা বললেন তদন্ত থামায়নি মুম্বই পুলিশ। বলিউডের প্রভাবশালীদের জন্যই সুশান্তের অবসাদ হয়েছিল কিনা, খতিয়ে দেখছে। একের পর এক সুশান্ত–ঘনিষ্ঠকে জেরা করছে। এবার জেরার মুখে সঞ্জনা সাঙ্ঘি। শেষ ছবি ‘‌দিল বেচারা’‌–তে সুশান্তের নায়িকা তিনি। মার্কিন লেখক জন গ্রিনের ‘‌ফল্ট ইন আওয়ার স্টার’‌–এর গল্প নিয়ে তৈরি ছবিটি। এর আগে পরিচালক মুকেশ ছাবড়াকেও জেরা করেছে পুলিশ। তবে সঞ্জনা বা মুকেশ কী বলেছেন জানা যায়নি। সুশান্তের মৃত্যুর চার দিন পর জেরা করা হয়েছে তাঁর প্রেমিকা রিয়া চক্রবর্তীকে। দিন কয়েক আগে রিয়ার ভাই শৌভিককেও জেরা করেছে পুলিশ। এই দুই ভাই–বোন সুশান্তের প্রতিষ্ঠিত সংস্থার অংশীদার ছিলেন। সূত্রে খবর, টাকার লেনদেন জানতেই জেরা হয়। 

ছবি:‌ অঙ্কিতার সোশ্যাল সাইট অ্যাকাউন্ট থেকে

জনপ্রিয়

Back To Top