আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ গত ছ’‌মাসে সাতটি ছবি হাতছাড়া হয় সুশান্ত সিং রাজপুতের। তখন থেকেই ভেঙে পড়েনি অভিনেতা। অবসাদের চিকিৎসাও শুরু করেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত চাপটা আর বোধ হয় নিতে পারেননি। বান্দ্রার ফ্ল্যাট থেকে ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয় সুশান্তের। পুলিশ জানায়, আত্মহত্যা করেছেন ৩৪ বছরের অভিনেতা। 
সেই নিয়ে একের পর এক রহস্য দানা বাঁধছে। উঠে আসছে নানা তত্ত্ব। আঙুল উঠেছে বলিউডের প্রভাবশালী গোষ্ঠীর দিকে। বলিউডের একাংশ দাবি করেছেন, ‘‌স্বজনপোষণ’‌ই প্রাণ নিল সুশান্তের। সিবিআই তদন্তের দাবি করেছেন বিজেপি নেতারা। কাদা ছোড়াছুড়ি চলছেই। এসবের মধ্যেই শিবসেনা নেতা আবার তুলে ধরলেন নতুন এক তথ্য। সঞ্জয় রাউতের দাবি, মানসিক অবসাদের জন্যই ছবি হাতছাড়া হয়েছিল সুশান্তের। 
প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জর্জ ফার্নান্ডেজের বায়োপিকে অভিনয় করার কথা ছিল সুশান্তের। সেই ছবি শেষ পর্যন্ত তাঁর হাত থেকে চলে যায়। এজন্য সুশান্তের মানসিক অবসাদকেই দায়ী করলেন শিবসেনা নেতা। প্রতিবেদনে লিখলেন, ছবির সেটে গিয়ে নাকি অদ্ভুত আচরণ করতেন সুশান্ত। সেজন্য নাকি বাকি অভিনেতা, কলাকুশলীদের অসুবিধা হত। সুশান্তের এই আচরণের কারণ ছিল তাঁর মানসিক রোগ। 
এখানেই থামেননি রাউত। তাঁর কথায়, সুশান্ত নিজের দোষেই নাকি নিজের কেরিয়ার নষ্ট করেছেন। একথা জানিয়েছেন বলিউডেরই কিছু লোকজন। তার পর সেই ব্যর্থতা আর নিতে পারেননি। বেছে নিয়েছেন আত্মহত্যার পথ। 
শিবসেনা নেতা যখন এই দাবি তুলছেন, বিজেপি কিন্তু অন্য কথাই বলছে। বিজেপি সাংসদ রূপা গঙ্গোপাধ্যায় আবারও সিবিআই তদন্তের দাবি করেছেন। অনেক নেতা–মন্ত্রী সুশান্তের মৃত্যু আত্মহত্যা মানছেন না। তাঁদের মতে খুন করা হয়েছে সুশান্তকে। অভিনেতার মৃত্যু নিয়ে টানাপোড়েন জারিই রয়েছে। 

জনপ্রিয়

Back To Top