অলোকপ্রসাদ চট্টোপাধ্যায়
প্রায় এক শতাব্দী বাদে আবার তিনি ফিরে আসছেন বাংলার মানুষের কাছে। তিনি ডাক্তার কাদম্বিনী গঙ্গোপাধ্যায়। বাংলার প্রথম মহিলা ডাক্তার। ভারতের প্রথম মহিলা গ্র‌্যাজুয়েটও তিনি। তখন তিনি কাদম্বিনী বসু। ১৮৮২ সালে তিনি এবং চন্দ্রমুখী বসু দুজনেই ভারতের প্রথম মহিলা স্নাতক হিসেবে উত্তীর্ণ হন। বেথুন কলেজের এই মেধাবী ছাত্রী সেই সময়ে নানান বাধাবিপত্তি অগ্রাহ্য করে ডাক্তার হন। তঁার এই এগিয়ে যাওয়ার পথে পাশে দঁাড়িয়েছিলেন তঁার স্বামী দ্বারকানাথ গঙ্গোপাধ্যায়।
৯৭ বছর আগে প্রয়াত কাদম্বিনী গঙ্গোপাধ্যায়কে নিয়ে এখন ‘‌ফার্স্ট’‌ হওয়ার প্রতিযোগিতায় বাংলার প্রধান দুটি চ্যানেল। ইতিমধ্যেই স্টার জলসায় শুরু হয়ে গেছে ধারাবাহিক ‘‌প্রথমা কাদম্বিনী’‌। জি বাংলায় আসছে ‘‌কাদম্বিনী’‌। চ্যানেলে চ্যানেলে অনেক প্রতিযোগিতা চলতেই থাকে। কিন্তু এই মহীয়সী নারীকে নিয়ে দুই চ্যানেলের প্রতিযোগিতায় বাঙালি দর্শক আবার ফিরে পাবেন এক অপরাজিতাকে। এই লড়াইকে সুস্থ বলে রায় দেবেন দর্শকরাই।
লকডাউনের আগেই সম্প্রচার শুরু হয়েছিল ‘‌প্রথমা কাদম্বিনী’‌র। তারপর প্রায় তিন মাস পরে যখন নতুন করে শুটিং শুরু হল, তখন প্রথম কয়েকটি পর্ব নতুন করে সম্প্রচার করে এখন চালু হয়েছে নতুন শুটিংয়ের এপিসোড। এই ধারাবাহিকে কাদম্বিনীর চরিত্রে আছেন টিভির পরিচিত মুখ সোলাঙ্কি।
জি বাংলার ‘‌কাদম্বিনী’‌র প্রোমোর সম্প্রচার শুরু হয়েছে লকডাউনের আগে। কিন্তু লকডাউনের ফলে শুরু করা যায়নি শুটিং। এখন শুটিং শুরু হয়েছে। কাছাকাছি আউটডোরের কাজ সেরে তারপর ইন্দ্রপুরীতে শুরু হবে শুটিং। এই ধারাবাহিকে কাদম্বিনীর চরিত্র করছেন ‘‌বকুলকথা’‌র ঊষসী। খুব শিগগিরই এই ধারাবাহিক চলে আসবে জি বাংলায়। দুই চ্যানেলের প্রতিযোগিতা শুরু হবে।
টালিগঞ্জের নানান স্টুডিও এখন সিরিয়ালের শুটিংয়ে জমজমাট। যথারীতি মানা হচ্ছে স্বাস্থ্যবিধি। ইন্দ্রাণী হালদার, টোটা রায়চৌধুরির মতো সিনিয়র শিল্পীদের পাশাপাশি পার্নো মিত্র কিংবা নবীন শন ব্যানার্জিরাও মানিয়ে নিয়েছেন নতুন পরিবেশে। ছোটদের এখন প্রবেশ নিষেধ। আর, যঁারা সিনিয়র সিটিজেন, তঁাদের অনেকেই বাধ্য হয়ে, স্বেচ্ছায় গৃহবন্দি। তঁাদের বদলে নতুন শিল্পীরাও কাজে নেমেছেন।
‘‌এখানে ‌আকাশ নীল’‌ ধারাবাহিকে প্রথম তিনদিন শুটিং করার পর ‘‌হিয়া’‌ চরিত্রের অনামিকা চক্রবর্তীকে আর ফ্লোরে দেখা যায়নি। শোনা গিয়েছিল, বদল হচ্ছেন অনামিকা। কিন্তু এই ধারাবাহিকের উজান–‌হিয়া তথা শন আর অনামিকা এর মধ্যেই বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছেন। সেজন্যেই আবার ফেরানো হচ্ছে অনামিকাকে। এই ধারাবাহিকের প্রযোজক সুরিন্দর ফিল্মস। জানা গেছে, টালবাহানা মিটেছে। ফিরছেন অনামিকা।
আর একটি প্রত্যাবর্তন রান্নাঘরে। দীর্ঘদিন রান্নাঘর সামলানোর পর সঞ্চালিকা সুদীপা চট্টোপাধ্যায় হঠাৎ সরে যান। এসেছিলেন অপরাজিতা আঢ্য। বৃহস্পতিবার থেকে জি বাংলার রান্নাঘরের হেঁশেল সামলাতে আবার এলেন সুদীপা। সবই টি আর পি–‌র খেলা— মন্তব্য এক ধারাবাহিক পরিচালকের।
টি আর পি কম বলেই বন্ধ হয়ে গেল জি বাংলার ধারাবাহিক ‘‌বাঘবন্দী খেলা’‌। অন্যদিকে নতুন ধারাবাহিক ‘‌তিতলি’‌ নিয়ে আসছেন পরিচালক সুশান্ত দাস, স্টার জলসায়। শুরু হল শুটিং। একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করবেন সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের কাকাবাবুর ‘‌সন্তু’‌ আরিয়ান। জি বাংলায় শেষ হবে ‘‌নকশি কঁাথা’‌। এই ধারাবাহিকের লেখিকা লীনা গঙ্গোপাধ্যায় বললেন, ‘‌দু’‌বছর তো হল। নকশি কঁাথার গল্প আর বোনা যাবে না।’‌ তার জন্যে অবশ্য লীনার কলম থামার উপায় নেই। লিখতে শুরু করেছেন নতুন ধারাবাহিকের গল্প। শুটিং শুরু জুলাইতে। আসবে স্টার জলসায়। এটি এই মুহূর্তে লীনার পঞ্চম ধারাবাহিক।
এত গল্প ধারাবাহিকভাবে মাথায় আসে?‌ হাসতে হাসতে লীনার উত্তর, ‘‌এ হল টি আর পি–‌র ভাঙাগড়ার খেলা।’‌
এই খেলাও ধারাবাহিক।
 

জনপ্রিয়

Back To Top