সৌগত চক্রবর্তী: • আর্সেনিক সচেতনতা নিয়ে ত্রিদিব রমণের ছবি ‘‌উড়ান’‌। এই ছবি করতে রাজি হলেন কেন?‌
•• ত্রিদিব রমণের এই ছবির গল্পটা শুনে খুবই ভাল লেগেছিল। এমন একটা ইস্যু বেসড ছবিতে অভিনয় করার মজাই আলাদা। তাছাড়া আর্সেনিক সচেতনতা নিয়ে ছবি। আজ অসংখ্য মানুষ বিশুদ্ধ পানীয় জলের অভাবে অসুস্থ হয়ে পরছেন। আর্সেনিকের প্রভাবে তাঁদের জীবনে অকালে অন্ধকার নেমে আসছে। এরকম একটা ছবিতে কাজ করতে পেরে আমি সত্যিই খুব খুশি।
• এই ছবিতে আপনার অভিনীত চরিত্রটা কেমন?‌
•• এই ছবিতে আমি অভিনয় করেছি পৌলোমীর চরিত্রে। সে সঙ্গীত জগতে নাম করতে চায়। কিন্তু তার মধ্যে প্রথম থেকেই মানুষের পাশে দাঁড়াবার একটা মন ছিল। সে যখন এই আর্সেনিকের ব্যপারটা জানল তখন সে নিজের থেকেই এর বিরুদ্ধে মানুষকে সচেতন করার কাজে নামল। তবে সে জয়ী হতে পারল কি না তা সিনেমাই বলবে।
• সদ্য শেষ হওয়া ‘‌ডান্স ডান্স জুনিয়র’‌-‌এ বিচারকের ভূমিকায় ছিলেন আপনি। আর আপনার সঙ্গে বিচারকের ভূমিকায় মিঠুন চক্রবর্তী। অভিজ্ঞতা কেমন?‌ 
•• সেই অভিজ্ঞতা তো বলে শেষ করা যাবে না। মিঠুন চক্রবর্তী এমন একজন স্টার যাঁকে আমি ছোট থেকে দেখছি। আমার পরিবারের অনেকেই ওঁর ভক্ত। সেরকম একজন মানুষের সঙ্গে একই মঞ্চে বসে বিচারকের ভূমিকা পালন করা বেশ শক্তই ছিল আমার পক্ষে। অস্বীকার করব না, প্রথম দিকে আমার একটু টেনশন হচ্ছিল। কিন্তু আমাদের কাছে টেনে নিয়ে সেই টেনশন কাটিয়ে দিলেন মিঠুন চক্রবর্তী। এত বড় স্টার কিন্তু একদম ডাউন টু আর্থ। শুনেছিলাম উনি রান্না করতে ভালবাসেন। সবাইকে নেমন্তন্ন করে খাওয়াতে ভালবাসেন। এবার অবশ্য সেই সৌভাগ্য আমার হয়নি। হয়ত আগামী দিনে হবে।
• গত বছর আপনার দুটি ছবি মুক্তি পেয়েছে। ‘‌গুগলি’‌ আর ‘‌টেকো’। এই ছবি দুটোর বক্স অফিস নিয়ে কি আপনি সন্তুষ্ট?‌
•• দেখুন মানুষের চাওয়ার তো শেষ নেই। তবে আমি ব্যক্তিগতভাবে সন্তুষ্ট এই ছবি দুটো নিয়ে। দুটোই ভিন্ন স্বাদের ছবি। আমি দর্শকদের কাছ থেকে আমার অভিনয় বা এই ছবি দুটো নিয়ে বেশ পজেটিভ রিঅ্যাকশন পেয়েছি। বিশেষ করে ‘‌টেকো’‌। ঋত্বিকদার মত অভিনেতার সঙ্গে কাজ করে বেশ ভাল লেগেছে।
• একসময় অপর্ণা সেনের ‘‌গয়নার বাক্স’‌তে অভিনয় করেছেন। অভিনয় করেছেন সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের ‘‌উমা’‌ বা অনিরুদ্ধ রায়চৌধুরির ‘‌বুনোহাঁস’‌ ছবিতেও। আপনার তো মিনিংফুল সিনেমায় আরও কাজ করার কথা ছিল। করলেন না কেন?‌
•• আমি একটু ধীরে চলায় বিশ্বাসী। আমি তো বাণিজ্যিক ফর্মুলার প্রোডাক্ট। ফলে আমার পক্ষে মিনিংফুল সিনেমায় আরও কাজ করে যেতে একটু সময় লাগবে। আমি তো করতে চাই। এবার বাকি কথা বলবেন এইসব ছবির পরিচালক ও প্রয়োজকরা। এই তো ‘‌উড়ান’‌ করছি। আর একটু সময় আমার চাই।
• কোন কোন পরিচালকের ছবিতে কাজ করতে চান?‌
•• কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায়ের বেশ কিছু টেলিছবিতে ছোটবেলায় কাজ করেছিলাম। তবে ওঁর সিনেমায় কোনও কাজ করিনি। আমি চাই ওঁর পরিচালনায় ছবিতে অভিনয় করতে। আর শিবুদার (‌শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়) ছবিতেও কাজ করার খুব ইচ্ছা। অনেকবারই ওঁর সঙ্গে ছবি নিয়ে কথা হয়েছে কিন্তু অন্য কাজে ব্যস্ত থাকার জন্য শেষ পর্যন্ত আর ওঁর পরিচালনায় কাজ করা হয়ে ওঠেনি।
• এই বছর আর কী কী ছবি আসছে আপনার?‌
••‌ রাজর্ষি দে-‌র ‘‌বীরপুরুষ’‌ শেষ হয়ে গেছে। এছাড়াও আছে অভিমন্যু মুখার্জির ‘‌হুল্লোড়’‌। আছে শাশ্বতদার (‌শাশ্বত চট্টোপাধ্যায়) সঙ্গে‌ ‘‌ছবিয়াল’‌। আর আছে রাজা চন্দর পরিচালনায় ‘‌আজব প্রেমের গল্প’‌। জি বাংলা অরিজিন্যালসের এই ছবি কিন্তু মুক্তি পাবে বড়পর্দায়। এই ছবিতে আমার বিপরীতে আছে বনি সেনগুপ্ত।
• আপনিতো পাবলিক ফাংশান বা মাচা-‌শোও করছেন। এই মাচা-‌শো কি আগের থেকে একটু কমেছে?‌ নাকি বেড়েছে?‌
•• কমবে কি!‌ এই মাসেই তো এখনও পর্যন্ত প্রায় ১২টা শো হয়ে গেল। মাচা-‌শোতে আমার দারুণ চাহিদা। এখনও অনেকগুলো শো বুক হয়ে আছে। দর্শকরা আমাকে মাঠের মঞ্চে ভীষণভাবে দেখতে চান।‌‌‌‌

ছবি:‌ বিপ্লব মৈত্র

জনপ্রিয়

Back To Top