সৌগত চক্রবর্তী: • এর আগে পরপর দু’‌বার আপনি ‘‌ডান্স বাংলা ডান্স জুনিয়র’‌-‌এর বিচারকের দায়িত্ব পালন করেছেন। এবার একই ভূমিকায় ফিরে আসতে চলেছেন ‘‌ডান্স ডান্স জুনিয়র’‌ রিয়্যালিটি শোয়। স্টার জলসায়। কেমন লাগছে?‌
•• অবশ্যই খুব খুব ভাল লাগছে। ভাল লাগার আরেকটা কারণ, এই শোয়ের সঙ্গে জড়িয়ে আছেন আমার চেনা মানুষগুলো। এই শোয়েরও পরিচালক শুভঙ্কর চট্টোপাধ্যায়। তাছাড়া আবার অনেকদিন পর এই রিয়্যালিটি শো দিয়েই আমরা ফিরে পাব মিঠুন চক্রবর্তীকে। কয়েকদিন আগেই মুম্বইতে তাঁর সঙ্গে প্রোমো শুট করে এলাম। সব মিলিয়ে আবার পুরনো পরিবেশে ফিরে আসা।
• আপনি আর সোহম বাংলা বড়পর্দার পরিচিত ও জনপ্রিয় জুটি। সেই ‘‌অমানুষ’‌ থেকে শুরু করে আপনারা একসঙ্গে প্রায় ন’‌টি ছবিতে জুটি বেঁধেছেন। এবার এই নাচের রিয়্যিলিটি শোতেও আপনারা বিচারক জুটি। কেমন লাগছে?‌
•• আমাদের মধ্যে এমনিতেই খুব বন্ধুত্ব। একটা মিষ্টি বন্ধুত্ব। যেখানে আমরা একে অন্যের কাজ সম্পর্কে খোঁজ খবরও রাখি আবার সময় সুযোগ পেলেই দুজনে ঝগড়াও করি। সোহম যেমন বলে প্রয়োজন না পড়লে আমি ওকে ফোন করি না। আবার সোহম সম্পর্কেও আমার কিন্তু একই অভিযোগ। তবে ওর সঙ্গে কাজটা আমি বেশ উপভোগ করি। সোহম যেমন কাজের ব্যাপারে অত্যন্ত সিরিয়াস, তেমনি কাজের ফাঁকে নানা রসিকতায় পরিবেশটাকে জমিয়ে দিতেও ওর জুড়ি নেই। আবার আমরা দুজনে এই নাচের শোয়ে একসঙ্গে কাজ করব, এটা খুবই আনন্দের কথা।
• কিন্তু আপনার সম্পর্কে সোহমের একটা অভিযোগ আছে, আপনি নাকি বিচারক হিসেবে বাচ্চাদের নম্বর 
 দেওয়ার ব্যাপারে খুব নির্দয়।
•• আরে বাবা আদতে এটা তো একটা নাচের শো যেখানে যারা নাচতে আসছে তাদের যোগ্যতার ভিত্তিতে নম্বর দেওয়া হয়। আর আমি মনে করি এতবড় একটা প্ল্যাটফর্মে যারা পারফর্ম করতে আসছেন তারা যথেষ্ট যোগ্যতা সম্পন্ন বলেই এখানে আসতে পারছে। যখন একজন বাচ্চার এই শো থেকে বিদায় নেওয়ার মতো পরিস্থিতি তৈরি হয়, তখন তাদের চোখ-‌মুখ দেখে আমারও তো কষ্ট হয়। কিন্তু একজন বিচারক যদি বিচার করতে বসেন তখন তার এইসব দিকে নজর দেওয়া উচিত নয়। আমরা তাকে উৎসাহিত করব, পরের পারফর্ম্যান্স যাতে আরও ভাল হয় সে ব্যাপারেও মতামত দেব কিন্তু আফটার অল তার প্রাপ্য নম্বরটা তো তাকে দিতেই হবে।
• একদিকে আপনি যেমন ‘‌গয়নার বাক্স’‌, ‘‌বুনোহাঁস’ বা ‘‌উমা’‌তে অভিনয় করেছেন তেমনি আবার ‘‌চ্যাম্পিয়ন’‌, ‘‌ওয়ান্টেড’ বা ‘‌জোশ’‌-‌এর মতো ছবিতেও অভিনয় করেছেন। বাণিজ্যিক ও সমান্তরাল ছবি একসঙ্গে সামলান কীভাবে?‌‌‌
•• আসলে অভিনয়টা আমি ভীষণ ভালোবাসি। আমি কোনও ছবিকে বাণিজ্যিক বা সমান্তরাল ছবি এইভাবে আলাদা ভাবে দেখি না। আমার কাছে চরিত্রটাই গুরুত্বপূর্ণ। কোন চরিত্রটা করছি, কী ভাবে করছি সেটাই বেশি গুরুত্বপূর্ণ।
• কিন্তু আপনি ব্যক্তিগতভাবে বাণিজ্যিক না সমান্তরাল কোন ছবিতে অভিনয় করতে বেশি ভালবাসেন?‌
•• আমি নিজে কিন্তু বাণিজ্যিক সিনেমায় অভিনয় করতে খুবই ভালোবাসি। আর শ্রাবন্তী আজকের শ্রাবন্তী হয়ে উঠেছে তো বাণিজ্যিক ছবির হাত ধরেই। তবে এক একটা সময় আসে, যখন মনে হয় সত্যিই এ বার একটু অন্য রকমের কাজ করে দেখা উচিত। দর্শকেরা এতদিন যে ভাবে শ্রাবন্তীকে দেখে এসেছেন, এ বার একটু অন্য ভাবে দেখুন। হয়তো সে সব ছবিতে নাচ-গানটা একটু কম, অভিনয়টাই প্রধান।
• আপনার সাম্প্রতিক ছবি ‘‌উমা’‌ বা ‘‌গুগলি’‌তে আপনি মায়ের ভূমিকায়। এখনই মায়ের ভূমিকায় অভিনয় করতে মন থেকে বাধা আসেনি?‌
•• আমি তো আগেই বলেছি আমার কাছে অভিনীত চরিত্রটাই প্রধান। যদি সেরকম  কোনও চরিত্র আসে যেখানে অভিনয়টাই প্রধান, যেখানে একটা চ্যালেঞ্জ আছে বা মনে হয় এই চরিত্রে অভিনয় করলে আমি অনেকদিন ধরে দর্শকের কাছে অভিনেত্রী হিসেবে নিজেকে তুলে রাখতে পারব, তাহলে কিন্তু একজন ষাট বছরের বৃদ্ধার চরিত্রেও আমি অভিনয় করতে রাজি।
• এখনও পর্যন্ত আপনার যা কেরিয়ার গ্রাফ তাতে কি আপনি খুশি?‌ না কি মনে করেন আপনার আরও অনেক কিছু দেবার ছিল সুযোগের অভাবে দিতে পারছেন না?‌
•• আমার তা সত্যিই মনে হয় না। আমি তো নিজেকে ভাগ্যবান ভাবি। এই দেখুন না, সব রকমের সিনেমার পরিচালকেরাই আমাকে সুযোগ দিয়েছেন। ‘ভাইজান’‌, ‘পিয়া রে’‌-র মতো ছবিও করছি ‘উমা’‌ও করেছি। একজন নারীকেই এতগুলো লুকে, এতরকম রূপে দেখছেন দর্শক। এটাই তো চেয়েছিলাম। তাই আমার কোনও আক্ষেপ নেই।
• আগামী দিনে কী কী ছবি আসছে আরনার?‌
•• অভিমন্যু মুখার্জির ‘‌হুল্লোড়’‌ আসছে। এখানেও আমার বিপরীতে আছে সোহম। এছাড়াও মুক্তি পাবে রাজর্ষি দে-‌র ‘‌বীরপুরুষ’‌, অভিমন্যু মুখার্জির ‘‌টেকো’‌, ত্রিদিব রামনের ‘‌উড়ান’‌।

ছবি:‌ সুপ্রিয় নাগ

জনপ্রিয়

Back To Top