মৌমিতা ভট্টাচার্য, মুম্বই:‌ শ্রীদেবীর মৃত্যুর খবর সোশ্যাল মিডিয়া এবং টেলিভিশনের খবরেই পেয়েছেন তাঁর প্রতিবেশীরা। লোখণ্ডওয়ালার ‘‌ভাগ্য’ এখন একেবারেই থমথমে। গুটি কয়েক লোকজনের আনাগোনা করছেন। বাইরেটা ফাঁকাই বলা চলে। ব্যারিকেড দিয়ে গোটা এলাকা ঘিরে রেখেছে পুলিস।

গতকাল ভিড় হলেও আজ কিন্তু সকাল থেকে একেবারে ফাঁকাই রয়েছে শ্রীদেবীর বাড়ির সামনের রাস্তা। ঘটনার দিন বাড়িতে একাই ছিলেন বড় মেয়ে জাহ্নবী। রাতে সঞ্জয় কাপুর ফিরেছিলেন ঠিকই। কিন্তু ভোরে আবার বেরিয়ে যান। 
প্রতিবেশীরা জানলেও খুব একটা প্রকাশ্যে আসতে চাইছেন না। যাঁরা দু’‌একটা কথা বলছেন তাঁরা জানিয়েছে একটু বেশি গম্ভীর প্রকৃতির ছিলেন শ্রীদেবী।

প্রতিবেশীদের সঙ্গে খুব বেশি কথা বলতেন না। দেখা হলে শুধু একটু হাসতেন। মেয়েদের একেবারে আগলে রাখতেন তিনি। পার্টি করতে দিতেন না। কারোর সঙ্গে খুব বেশি মিশতেও দিতেন না তিনি। শ্রীদেবী নিজেও খুব একটা মিশুকে ছিলেন না বলে দাবি তাঁদের।
নিজের ইমেজ নিয়ে একটু বেশিই সচেতন ছিলেন অভিনেত্রী। 

জনপ্রিয়

Back To Top