কাঞ্চন-পিঙ্কি বিতর্কে উদ্বিগ্ন সাবিত্রী চট্টোপাধ্যায়, জানালেন, শ্রীময়ীর নামও মুখে নিতে চান না!

আজকাল ওয়েবডেস্ক: উত্তরপাড়ার নব্য বিধায়ক, অভিনেতা কাঞ্চন মল্লিক, অভিনেত্রী পিঙ্কি ব্যানার্জি, ও শ্রীময়ী চট্টরাজের ত্রিকোণ প্রেমের সম্পর্কে মোড় ঘুরল রবিবার। সমস্ত বিতর্ককে উপেক্ষা করে রবিবার সকালে কাঞ্চন মল্লিকের বিরুদ্ধে নিউ আলিপুর থানায় অভিযোগ জানান স্ত্রী পিঙ্কি। অন্যদিকে পিঙ্কির বিরুদ্ধে পাল্টা অভিযোগ চেতলা থানায় জানান কাঞ্চন মল্লিক। তাঁদের সম্পর্কে নানা সংবাদমাধ্যমে গুজব ছড়াতেই চিন্তায় ছিলেন কাঞ্চন মল্লিকের দিদিশাশুড়ি সাবিত্রী চট্টোপাধ্যায়। কিংবদন্তি অভিনেত্রী জানান, রবিবারের ঘটনার পর পিঙ্কিকে নিয়ে তিনি উদ্বিগ্ন। অভিযোগ দায়ের করেই পিঙ্কি জানান, এই ঘটনা জানার পর অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন ঠাকুমা সাবিত্রী চট্টোপাধ্যায়। অন্যদিকে ভুল বোঝাবুঝি দূর করতেই সংবাদমাধ্যমের কাছে সাবিত্রী চট্টোপাধ্যায় জানান, ছোট থেকেই পিঙ্কি তাঁর কাছে মানুষ হয়েছেন। তাঁকে খুব ভাল করেই চেনেন তিনি। বিয়ের পর অনেকবার নিউ আলিপুরের বাড়িতে কাঞ্চন এসেছেন। তাঁর আচরণে কোনও ত্রুটি দেখতে পাননি তিনি। এমনকি ইন্ডাস্ট্রিতেও তাঁকে নিয়ে কোনও বিতর্ক হয়নি। এই ঘটনা শুনে তিনি হতবাক হন। কিন্তু কিছু না করেই কাঞ্চন ভুল বুঝছেন তাঁদের সকলকে। কাঞ্চনের ধারণা, সংবাদমাধ্যমের কাছে তাঁর বিরুদ্ধে মিথ্যে রটনা ছড়িয়েছেন পিঙ্কি এবং তাঁর পরিবার। পিঙ্কি তাঁর সঙ্গে দেখা করতে আসেন শনিবার রাতে। তারপরেই পিঙ্কির খোঁজ করতে তাঁর ফ্ল্যাটে শ্রীময়ী চট্টরাজকে নিয়ে পৌঁছান কাঞ্চন। তখনই জানান, পিঙ্কি নেই তাঁর বাড়িতে। একইসঙ্গে কাঞ্চনকে পরামর্শ দেন, তিনি যেন ঠান্ডা মাথায় পিঙ্কির সমস্ত কথা শোনে। হঠকারিতায় কোনও কিছু করা বোকামির লক্ষণ! এই ঘটনার পরেই চেতলার কাছে পিঙ্কির উপর চড়াও হন শ্রীময়ী, কাঞ্চন। সাবিত্রী চট্টোপাধ্যায় জানান, শ্রীময়ীর নাম মুখে নিতে চান না তিনি। কাঞ্চনের বান্ধবীই পিঙ্কির দিকে তেড়ে আসেন। তাঁদের ছেলের উপস্থিতিতে পিঙ্কিকে শ্রীময়ী অপমান করার পরেও চুপ ছিলেন কাঞ্চন! বিতর্ক নিয়ে আর মন্তব্য করতে নারাজ বর্ষীয়ান অভিনেত্রী।