সৌগত চক্রবর্তী: গত বছর না বাংলা, না হিন্দি কোনও ভাষাতেই বড়পর্দার কোনও ছবিতে দেখা যায়নি রাইমা সেনকে। তবে গতবছর একটি ওয়েব সিরিজে অভিনয় করেছিলেন তিনি। ছবির নাম ছিল ‘‌হ্যালো’‌। তবে এবার ছবিটা একটু পাল্টেছে। এই বছরেরই প্রথম সপ্তাহে মুক্তি পেয়েছে তাঁর নতুন ছবি ‘‌ভদকা ডায়রিজ’‌। ছবিটা বক্স অফিসে তেমন কিছু করে দেখাতে না পারলেও খুশি রাইমা। কারণ, ‘‌দীর্ঘদিন ছবির বাইরে ছিলাম আমি। অনেক মানুষ আমার সম্পর্কে অনেক কিছু ভেবে নিয়েছিলেন। তাই দীর্ঘদিন পরে মুক্তি পেলেও ‘‌ভদকা ডায়রিজ’‌ নিয়ে আমি খুশি। আমি যে এখনও ছবির মধ্যেই আছি, হারিয়ে যাইনি, এই ছবিই তার প্রমাণ।’‌ কিন্তু কেন এই একবছর ধরে ছবিতে অনুপস্থিত তিনি?‌ রাইমা জানালেন, ‘‌আসলে এবার অভিনীত চরিত্র নিয়ে একটু সচেতন হয়েছি আমি। তাতে ছবির সংখ্যা কমলেও কিছু এসে যায় না। তাছাড়া হিন্দি সিনেমার দিকেও একটু ফোকাস দিয়েছিলাম। এ বছর একে একে আমার একাধিক হিন্দি ছবি মুক্তি পাবে।’‌
কিন্তু বাংলা ছবিতে কি আর কাজ করবেন না রাইমা?‌ ‘‌আসলে বাংলা ছবিতে তেমন ইন্টারেস্টিং চরিত্র পাচ্ছিলাম না। তাই বাংলা থেকে একটু সরে গিয়ে হিন্দিতেই মন দিয়েছিলাম,‌’‌ বললেন রাইমা। কিন্তু এই সপ্তাহেই মুক্তি পেল রাইমা অভিনীত একটি বাংলা ছবি। রাজীব চৌধুরি পরিচালিত সেই ছবির নাম ‘‌কায়া’‌। তাহলে?‌
‘‌আসলে এই ছবিটারও শুটিং হয়ে গিয়েছিল অনেক আগেই। তবে এই ছবির চরিত্রটাও আমার ভাল লেগেছে। কর্মক্ষেত্রে মহিলাদের কীরকম যৌন হেনস্থার শিকার হতে হয়, তাই নিয়ে এই ছবি। আমার বিপরীতে এই ছবিতে অভিনয় করেছেন কৌশিক সেন। এছাড়াও আছেন প্রিয়াঙ্কা সরকার,’‌ বললেন রাইমা।
তবে তিনি উচ্ছ্বসিত তাঁর আগামী হিন্দি ছবিগুলো নিয়ে। জানালেন, মুক্তি প্রতীক্ষায় আছে তাঁর ‘‌থ্রি দেব’‌, ‘‌বারানসী’‌ ও ‘‌কুলদীপ পাটওয়াল’‌। তবে বারবার উল্লেখ করলেন আর্জেন্টানীয় পরিচালক পাবলো সিজার পরিচালিত ‘‌থিংকিং অফ হিম’‌ নিয়ে। ছবির বিষয় এক আধুনিক তরুণ-‌তরুণী ও তাদের জীবনে রবীন্দ্রনাথ এবং ভিক্টোরিয়া ওকাম্পোর প্রভাব। জানালেন, ‘‌ছবিতে আমার চরিত্রের নাম কমলী। আমার বিপরীতে অভিনয় করেছেন হেক্টর বর্দনি। এছাড়াও রবীন্দ্রনাথের ভূমিকায় আছেন ভিক্টর ব্যানার্জি।’‌ এই ছবিতে অভিনয়ের প্রস্তাব কীভাবে এল?‌ ‘‌পাবলো ‘‌চোখের বালি’‌-‌তে আমার অভিনয় দেখে খুশি হয়েছিলেন। সেই থেকেই যোগাযোগটা হয়। এই ছবিও মুক্তি পাবে এই বছরেই।’‌ এছাড়াও রাজর্ষি দে-‌র ছবি ‘‌শুভ নববর্ষ’‌-‌তেও অভিনয় করছেন রাইমা।
এই মূহূর্তে রাইমা ব্যস্ত তাঁর নতুন বাংলা ছবির শুটিং-‌এ। আবুল বাশারের গল্প ‘‌ভোরের প্রসূতি’‌ অবলম্বনে এই ছবির নাম ‘‌সিতারা’‌। ছবিতে একটু ব্যতিক্রমী চরিত্রে অভিনয় করছেন তিনি। বললেন, ‘‌পশ্চিমবঙ্গ আর বাংলাদেশ সীমান্তের গল্প নিয়ে এই ছবি। বাংলাদেশে তৈরি পোশাক কীভাবে চোরা পথে শিয়ালদহ হয়ে পশ্চিমবঙ্গে ঢোকে আর তারপর সারা ভারতের বাজারে ছেয়ে যায় তাই নিয়ে ছবির প্রেক্ষাপট। এই ব্যবসায় নারীরা অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায়। মহিলারা এই ব্যবসায় এসে বারবণিতাতে পরিণত হয়। এরকমই একটা চরিত্র সিতারা। এই ভূমিকাতেই অভিনয় করছি আমি। সিতারা খুব সুন্দরী, ব্যবসার মধ্যমণি। তাকে নিয়ে টানাটানি হয় মহাজনদের মধ্যে।’‌
এই ছবির পরিচালনায় আছেন আশিস রায়। অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করছেন বাংলাদেশের এফ আর বাবু ও জাহিদ হাসান, দক্ষিণী অভিনেতা এম নাসের যিনি ‘‌বাহুবলী’‌ ছবিতে শিবগামীর স্বামীর ভূমিকায় অভিনয় করেছেন, আর আছেন সুব্রত দত্ত, এক রাজনৈতিক নেতার ভূমিকায়। এখন কোচবিহারে চলছে এই ছবির শুটিং পর্ব। এছাড়াও চূর্ণী গঙ্গোপাধ্যায়ের পরিচালনায় আগামী ছবি ‘‌তারিখ’‌-‌এ অভিনয়ের কথা আছে রাইমার। সব মিলিয়ে এই বছরটা বেশ গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে রাইমার কাছে। রাইমা নিজেই জানালেন, ‘‌ভদকা ডায়রিজ’‌ দিয়ে শুরু হয়েছে তাঁর কেরিয়ারের দ্বিতীয় ইনিংস। কতখানি ঝলমলে হেয়ে উঠবে সেই ইনিংস, তা অবশ্য সময়ই বলবে।‌

জনপ্রিয়

Back To Top