‌সৌগত চক্রবর্তী: সৃজিত মুখোপাধ্যায় শুরু করেছিলেন তাঁর তৃতীয় ‘‌কাকাবাবু’ সিরিজের ছবি ‘‌কাকাবাবুর প্রত্যাবর্তন’‌-‌এর শুটিং। কিন্তু শেষ পর্যন্ত শুটিং অসমাপ্ত রেখেই কেনিয়া থেকে ফিরতে হল তাঁদের। তার আগেই অবশ্য কাকাবাবু আর সন্তু পৌঁছে গিয়েছিলেন কেনিয়ায়। সেখান থেকে প্রসেনজিৎ পোস্ট করলেন তাঁর আর আরিয়ানের ছবি। শুরুও হয়ে গিয়েছিল সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের পরিচালনায় সেই ছবির শুটিং।
নতুন অভিযানে কাকাবাবু আর সন্তু এবার গিয়েছিলেন মাসাইমারায়। কেনিয়ার সেই দিগন্ত বিস্তৃত সাভানা ঘাসের জঙ্গল, রুক্ষপ্রান্তর, বাওবাব গাছ আর স্তন্যপায়ী প্রাণীদের মাইলের পর মাইল যাযাবর যাত্রা এবার উঠে আসার কথা ছিল বাংলা ছবিতে। যা সাধারণত ন্যাশনাল জিওগ্রাফিক চ্যানেলেরই বিষয় ছিল। ‘‌মিশর রহস্য’‌ বা ‘‌ইয়েতি অভিযান’‌-‌এর পর এবার শুরু হল ‘‌কাকাবাবুর প্রত্যাবর্তন’‌ ছবির শুটিং। আগামী প্রায় দু’‌মাস ধরে এই শুটিং পর্ব চলার কথা ছিল।
সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়ের কাকাবাবু উপন্যাস ‘‌জঙ্গলের মধ্যে এক হোটেল’‌ অবলম্বনে সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের এই ছবি ‘‌কাকাবাবুর প্রত্যাবর্তন’‌। গভীর জঙ্গলের মধ্যে তাঁবু ঢাকা এক হোটেল ‘‌লিটল ভাইসরয়’‌। কেনিয়া থেকে চাটার্ড প্লেনে যেতে হয় এই হোটেলে। কোনও এক রহস্যময় কারণে সেই হোটেল থেকে একের পর এক উধাও হয় যায় পর্যটকেরা। উধাও হয় যান কাকাবাবুর বন্ধু হ্যারি ওটাঙ্গো। কী সেই রহস্য?‌ এর আগে বাংলা ছবিতে রহস্যে মোড়া কিলিমাঞ্জারো পাহাড় বা চাঁদের পাহাড়কে উপহার দিয়েছিলেন কমলেশ্বর মুখোপাধ্যায়। সন্দীপ রায় তাঁর ‘‌প্রফেসর শঙ্কু ও এল ডোরাডো’‌ ছবিতে উপহার দিয়েছিলেন আমাজনের রেন ফরেস্ট। এবার সৃজিতের ছবিতে দেখা মিলবে সিংহ, লেপার্ড, হাতি, কেপ বাফেলো, ওয়াইল্ড বিস্ট, হায়না, জলহস্তি, বুনো কুকুরের দল, বিষধর সাপ, জিরাফ, জেব্রা ও গরিলার। দেখা মিলবে বীর মাসাই যোদ্ধাদের।
নিছক ছুটি কাটাতেই এবার কেনিয়ায় আসা কাকাবাবু আর সন্তুর। কিন্তু রাজধানী নাইরোবি পৌঁছনোর ৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই সন্তুর কাছে আসে এক হুমকি ফোন। এখুনি ইন্ডিয়ায় ফিরে যাও, নইলে.‌.‌.‌। কে করল এই হুমকি ফোন?‌ কে এই নিনজানে বা ফিলিপ?‌ কেই বা কাকাবাবুর কপালে পিস্তল ঠেকাল?‌ 
এই গরমেই মাইলের পর মাইল অতিক্রম করে এই এলাকার স্তন্যপায়ী প্রাণীরা। যাকে বলে মাইগ্রেটিং। তানজানিয়ার সেরেঙ্গেটির প্রান্তর থেকে প্রায় ১২০০ মাইল অতিক্রম করে কেনিয়ার মারা নদীর প্রান্তরে পৌঁছে যায় লক্ষ লক্ষ স্তন্যপায়ী প্রাণী। শুধু নতুন ঘাসের সন্ধানে চলে এই জীবনযুদ্ধ। সৃজিত জানালেন, জীবনের সন্ধানে এই যাত্রাকেও তুলে আনতে চান তিনি এই ছবিতে। তবে কবে আবার এই ছবির শুটিং শুরু হবে তা এখনও ঠিক হয়নি। ছবি মুক্তি পাওয়ার কথা এই পুজোয়। ‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top