আজকালের প্রতিবেদন: সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে, করোনা–‌সতর্কতার ব্যবস্থা নিয়ে সিনেমার পোস্ট প্রোডাকশনের কাজ শুরু করা যাবে। মঙ্গলবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি একথা বলার পর টালিগঞ্জের স্টুডিওপাড়ায় অনেকেই চিন্তাভাবনা করছেন সোমবার থেকে কাজ শুরু করার। ফেডারেশনের সভাপতি স্বরূপ বিশ্বাস বললেন, কোন কোন এলাকায় ডাবিং, এডিটিংয়ের স্টুডিও আছে দেখে নিয়ে সবরকমের সতর্কতামূলক ব্যবস্থা–সহ সোমবার থেকে কাজ শুরু করা যাবে। তিনি বলেন, মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ অনুযায়ী সবরকমের সতর্কতা নিয়েই কাজ করা হবে। আর্টিস্ট ফোরামের পক্ষ থেকে অরিন্দম গাঙ্গুলি বললেন, ডাবিং বা এডিটিং স্টুডিওয় খুব বেশি লোকের তো দরকার হয় না। ফলে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নিতে অসুবিধা হবে না। কোন জোনে স্টুডিওগুলো আছে, তা দেখে নিয়ে কাজ শুরু করতে হবে। প্রয়োজক অতনু রায়চৌধুরির নতুন ছবি ‘‌টনিক’‌–এর দু’‌দিনের ডাবিং বাকি আছে। এই ছবির নায়ক দেব। অতনু বললেন, বুধবার খোঁজখবর করবেন স্টুডিও সোমবার থেকে খোলা থাকবে কি না। তাহলে শিল্পীদের সঙ্গে কথা বলে ডাবিংয়ের কাজ শেষ করা যেতে পারে। তবে সকলেই একমত যে, শুটিংয়ের কাজ শুরু করতে আরও কিছুদিন দেরি হবে। কারণ শুটিং করার সময় শিল্পীরা ছাড়াও প্রচুর লোকজনকেই ফ্লোরে থাকতে হয়। তাই শুটিং কবে শুরু হবে, এখনই কেউ নির্দিষ্ট করে বলতে পারছেন না।
এদিকে সিনেমা হল–‌মালিকেরা রাজ্য সরকারের কাছে কর মকুব ও অর্থনৈতিক সহায়তা এবং সুদ‌হীন ঋণের জন্য আবেদন করলেন। দ্য ইস্টার্ন ইন্ডিয়া মোশন পিকচার্স অ্যাসোসিয়েশনের (‌ইম্পা) একজিবিটর বিভাগ সম্প্রতি মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির কাছে আবেদন জানিয়েছে, লকডাউন পর্বে হল–‌মালিকেরা কর্মীদের যে বেতন দিয়েছেন, তার ৫০ শতাংশ যাতে ফিরে পাওয়া যায়। অ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান রতন সাহা জানিয়েছেন,  সিনেমা হল–‌পিছু ২ লাখ টাকা সুদহীন ঋণ চাওয়া হয়েছে, যাতে হলমালিকেরা তাঁদের বকেয়া মিটিয়ে ব্যবসায় ফিরতে পারেন। এই চিঠিটি বুধবার প্রচার মাধ্যমের কাছেও পাঠানো হয়েছে। যে তারিখ থেকে সিনেমা হলগুলো বন্ধ হয়েছে, সেই তারিখ থেকে অন্তত দু বছরের জন্য জিএসটি, প্রদর্শনী ‌কর, স্থানীয় বিনোদন কর, সম্পত্তি কর এবং অন্যান্য পুরকর মকুবের আবেদন জানানো হয়েছে। পরিষেবা করও যথাসম্ভব কম করার জন্য বলা হয়েছে, যাতে হলমালিকেরা সুযোগ–‌সুবিধেগুলোর উন্নতি ঘটাতে পারেন।

জনপ্রিয়

Back To Top